এবার ভাঙা হচ্ছে মেয়র আব্বাসের অবৈধ মার্কেট

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০১:৪৪ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

ভেঙে ফেলা হচ্ছে কাটাখালী বাজারের বাস স্ট্যান্ডের পাশে সরকারি খালের ওপর নির্মিত মেয়র আব্বাস আলীর তৈরিকৃত অবৈধ দোতলা মার্কেটটি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, শুধু মেয়র আব্বাস ভবনই নয়, একইসঙ্গে ভাঙা হবে এই এলাকার সব অবৈধ স্থাপনা।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল ৯টা থেকে স্থানীয় প্রশাসনের উপস্থিতিতে কাটাখালীতে মেয়র আব্বাসের নির্মাণাধীন দোতলা মার্কেটি ভাঙার কাজ শুরু হয়।

জানা গেছে, মার্কেটটির নিচ তলায় সাতটি দোকান ছিল। সেই দোকানগুলোর ৯০ শতাংশ কাজ সম্পন্ন করা হয়েছিল। এছাড়া দোতলার উপরের শুধু ছাদ ঢালায়ের কাজ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এই মার্কেট ভাঙার পর কাটাখালী বাজারের উত্তরে মসজিদের সামনে অবৈধ দোকানপাট রয়েছে সেগুলো উচ্ছেদ করা হবে।

পবা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ এহসান উদ্দিন বলেন, ক্ষমতার অপব্যবহার করে মেয়র আব্বাসসহ অনেকেই কাটাখালী পৌরসভার সরকারি খালের বেশকিছু জায়গায় অবৈধ স্থাপনা গড়ে তুলেছেন। যার কারণে বেলঘড়িয়া, শ্যামপুরসহ আশপাশের এলাকার মানুষ বর্ষায় জলাবদ্ধতার সম্মুখীন হন। অবৈধ স্থাপনাগুলো উচ্ছেদের ফলে খালের পানি চলাচল স্বাভাবিক হবে।

jagonews24

তিনি জানান, সম্প্রতি এই খালটি পদ্মা নদী থেকে হরিয়ান বাইপাস এলাকা পর্যন্ত পুনর্সংস্কার করা হয়। যদিও খালটি ফলিয়ার বিলে গিয়ে মিশেছে। তবে সংস্কারের এক বছরের মাথায় কাটাখালী পয়েন্টে মেয়র আব্বাস খালের জায়গাটিতে মাটি ও বালু দিয়ে ভরাট করে সরু আরসিসি ঢালায় দিয়ে দোতলা মার্কেট নির্মাণ করেছেন। এতে খালে পানি চলাচলের স্বাভাবিক গতি ব্যাহত হয়ে পড়ে। এনিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হলে কিছু দিনের জন্য ভবন নির্মাণ কাজ বন্ধ ছিল। তবে পরক্ষণে মেয়র আব্বাস আলী স্থানীয় প্রশাসনের কথা অমান্য করে আবারও কাজ শুরু করেন।

স্থানীয় ভাষ্যমতে, মেয়র আব্বাসের দোতলা ভবনের পূর্বে এ স্থানে ৭ থেকে ৮টি ছাউনির মতো অস্থায়ী দোকান ছিল। দোকানগুলোতে স্থানীয় নিম্নশ্রেণির কিছু ব্যবসায়ী ব্যবসা করে তাদের আহার জোগাতেন। তবে জায়গাটি মেয়র আব্বাসের নজরে আসায় তিনি নিজ দখলে নেন এবং গড়ে তোলেন দোতলা ভবন। দোকান বিক্রির নামে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার উদ্দেশ্যেই তিনি এ বিল্ডিং তুলেছিলেন বলে অভিযোগ তোলেন স্থানীয়রা।

মেয়র আব্বাসের ভবন ভাঙার সময় উপস্থিত ছিলেন কাটাখালী ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মঞ্জুর রহমান। তিনি বলেন, ‘মেয়র আব্বাসের মোট ৪টি অবৈধ স্থাপনা আমরা চোখে দেখতে পাচ্ছি। এই ৪টি স্থাপনা ভাঙার জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালত আজ কাটাখালীতে এসেছে। ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে রাজশাহী জেলা প্রশাসকের নির্দেশে মেয়র আব্বাসের অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের কাজ চলছে। এসব স্বচোক্ষে দেখার জন্য এখানে উপস্থিত হয়েছি।

অবৈধ স্থাপনা অপসারণের বিষয়ে পবা উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি শেখ এহসান উদ্দিন বলেন, মেয়র আব্বাসের এই মার্কেটটি সরকারি খালের ওপরে তৈরি, যা অবৈধ। গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর আমরা জানতে পারি। এরপর এটি অপসারণের জন্য তাকে নোটিশ করি। তবে তিনি প্রেরণকৃত নোটিশের কোনো জবাব দেয়নি। আর তাই, আজ আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে আইনসম্মত ব্যবস্থা গ্রহণ করছি।

ফয়সাল আহমেদ/এফএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]