পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ওসমানী হাসপাতাল বিএনএর কৃতজ্ঞতা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৫:০৫ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২২
পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন

করোনার টিকা ও বিশ্ব কুটনীতিতে সফল এবং সিলেটের উন্নয়নে বিশেষ অবদান রাখায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেনকে সংবর্ধনা দিয়েছে সিলেট সিটি করপোরেশন।

সে সংবর্ধনায় অংশ নেন সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহস্রাধিক নার্সিং কর্মকর্তা ও নার্সিং শিক্ষার্থী। তাদের উপস্থিতি অভিভূত হন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এজন্য বাংলাদেশ নার্সেস অ্যাসোসিয়েশন (বিএনএ) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেকের কাছে ধন্যবাদপত্র পাঠিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে এ মোমেন।

বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) ধন্যবাদপত্রটি বিএনএ সাধারণ সম্পাদকের কাছে হস্তান্তর করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা শফিউল আলম জুয়েল। নার্সিং কর্মকর্তাদের সম্মানসূচক ধন্যবাদপত্র দেওয়ায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন এমপির প্রতি সিলেট বিভাগের নার্সিং কর্মকর্তাদের পক্ষে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন বিএনএ সিলেটএমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখার সাধারণ সম্পাদক ইসরাইল আলী সাদেক।

গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে সাদেক বলেন, ‘ধন্যবাদপত্রটি বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কাজে নার্সিং কর্মকর্তাদের সম্পৃক্ততার একটি স্মারকপত্র। এ সম্মান শুধু সিলেটের নার্সিং সমাজের নয়, সারাদেশের নার্সিং কর্মকর্তা ও নার্সিং শিক্ষার্থীদের। এজন্য সিলেট বিভাগের নার্সিং কর্মকর্তারা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে কৃতজ্ঞ। ’

করোনাকালীন কঠিন সময়ে নার্সিং কর্মকর্তাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও তার সহধর্মিণী সেলিনা মোমেনের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান ইসরাইল আলী সাদেক। তিনি বলেন, ‘করোনাভাইরাসের সংক্রমণের শুরুতে মোমেন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সেলিনা মোমেন সিলেটের নার্সিং কর্মকর্তাদের জন্য সুরক্ষা সামগ্রী পাঠিয়েছেন। শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালের নার্সিং কর্মকর্তা রুহুল আমিন করোনায় সংক্রমিত হয়ে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলে তার পরিবারকে নগদ দুই লাখ টাকা আর্থিক সহায়তা ও তার ছেলের পড়ালেখার ব্যবস্থা করে দেন সেলিনা মোমেন।

মন্ত্রী মহোদয়ের এমন মানব হিতৈষী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে নার্সিং কর্মকর্তাদের প্রতি তার মমত্ববোধের প্রকাশ ঘটিছে। যা সিলেটের নার্সিং কর্মকর্তারা শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণে রাখবে।

ছামির মাহমুদ/আরএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]