বিয়ের আশ্বাসে ইউপি সদস্যকে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ১১:১৮ পিএম, ১৪ মে ২০২২
প্রতীকী ছবি

রাজশাহীর মোহনপুরের জাহানাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্যকে (৪২) বিয়ের আশ্বাসে বাড়িতে ডেকে নিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার (১৩ মে) রাতে মোহনপুর থানায় পাঁচজনকে আসামি করে ওই নারী মামলা করেছেন।

শনিবার (১৪ মে) রাতে মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তৌহিদুল ইসলাম জাগো নিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওসি বলেন, জরুরি সেবা ৯৯৯-এ ফোন করে একজন নারী বিষয়টি পুলিশকে জানালে ওই নারী ইউপি সদস্যকে উদ্ধার করা হয়। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়।

মামলার এজাহারের বরাতে ওসি তৌহিদুল ইসলাম জানান, গত ১২ মে বুধবার রাত ৯টার দিকে মোহনপুর উপজেলার জাহানাবাদ ইউনিয়নের ধোরশা মোল্লাপাড়া গ্রামের মৃত সেফাতুল্লাহর ছেলে মজিবর রহমান সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্যকে (৪২) বিয়ের প্রলোভনে নিজ বাড়িতে নিয়ে যায়। বুধবার ও বৃহস্পতিবার দুদিন বাড়িতে আটকে রেখে তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করে মজিবর রহমান।

তিনি আরও জানান, শুক্রবার ভোররাতে তাকে একটি ঘরে আটকে রেখে মজিবর পালিয়ে যান। পরদিন সকালে মজিবরের চারজন লোক নারীকে মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে স্থানীয়দের সহযোগিতায় ৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে মোহনপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

আসামি মজিবর রহমানসহ অন্য আসামিরা ওই নারীর কাছ থেকে দুই লাখ চার হাজার টাকা ছিনিয়ে নিয়েছে বলেও এজহারে উল্লেখ করেছেন বাদী।

আসামিদের গ্রেফতারের বিষয়ে ওসি বলেন, ‘পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এজহারভুক্ত আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।’

জানতে চাইলে জাহানাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. হযরত আলী বলেন, এ ঘটনা জানার পরপরই প্রশাসনকে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। এনিয়ে মোহনপুর থানা পুলিশও তাকে (নারী ইউপি সদস্য) সহযোগিতা করেছে।

ফয়সাল আহমেদ/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]