‌‌‌‌‌‌‘প্রধান নদীগুলোর তলদেশ ভরাট হয়ে যাওয়ায় বন্যা হচ্ছে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক সিলেট
প্রকাশিত: ০৪:৩৬ পিএম, ১৮ মে ২০২২
বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ শেষে বক্তব্য রাখছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবুল মোমেন

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবুল মোমেন বলেছেন, প্রধান নদীগুলোর তলদেশ ভরাট হয়ে যাওয়ায় বন্যার পানি ধারণ করতে পারে না। ফলে বন্যা হচ্ছে। নদী খননের ব্যাপারে আমাদের সরকার খুবই আন্তরিক। আমরা পরিকল্পনা নিয়েছি। আগামী বর্ষার আগেই নদীগুলো খনন করতে হবে।

বুধবার (১৮ মে) দুপুরে সিলেটের চালিবন্দর এলাকার একটি আশ্রয়কেন্দ্রে বন্যা দুর্গতদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সিলেটে এ মৌসুমে সবসময়ই ঢল নামে। আমাদের ছেলেবেলায় এমনটি দেখেছি। কিন্তু পানি আটকে থাকতো না। চলে যেতো। কারণ আমাদের শহরেও অনেক পুকুর ও দিঘী ছিল। প্রত্যেক বাড়ির সামনে পুকুর ছিল। আর সিলেটকে বলা হতো দিঘীর শহর। কিন্তু এখন আমরা নগরের ভেতরের সব পুকুর দিঘী ভরাট করে বড় বড় বিল্ডিং করেছি। হাওরগুলো ভরাট করে ফেলেছি। খালি মাঠগুলো ভরাট হয়ে গেছে। এ কারণে পানি নামতে পারছে না। যে কোনো দুর্যোগেই সিলেটের জন্য এটা একটা ভয়ের কারণ।

jagonews24

মন্ত্রী নগরের পুকুর-দিঘীসহ জলাশয়গুলো রক্ষায় সবাইকে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান। এছাড়া ড্রেনগুলো খনন করা ও আরও বড় করার জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। তিনি বলেন, প্রাকৃতিক সিস্টেমটাকে নষ্ট করা যাবে না।

বন্যার্তদের প্রতি সহমর্মিতা জানিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এ পানি বেশি দিন থাকবে না। দ্রুত নেমে যাবে। ফলে কয়েকটা দিন কষ্ট করতে হবে। এ সময়ে সরকার আপনাদের পাশে আছে।

jagonews24

এসময় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ড. এনামুল হক, সচিব মো. কামরুল হাসান, সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার নিশারুল আরিফ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন ও সিলেট সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র তৌফিক বক্স লিপন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

ছামির মাহমুদ/আরএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]