রাতেও বিদ্যালয়ে ‘ওড়ে’ জাতীয় পতাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক রংপুর
প্রকাশিত: ০৩:৪৩ পিএম, ২৪ মে ২০২২
রংপুরে রাতেও বিদ্যালয়ে উড়ছিল জাতীয় পতাকা

রংপুর সদর উপজেলার পালিচড়ায় জাতীয় পতাকা অবমাননার অভিযোগ উঠেছে। সরকারি নিয়ম অনুসারে সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত জাতীয় পতাকা উত্তোলনের নিয়ম থাকলেও উপজেলার ২নং পালিচড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাতেও জাতীয় পতাকা উড়তে দেখা যায়।

জাতীয় পতাকা অবমাননার এমন ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় সচেতন মহল।

এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, সোমবার (২৩ মে) রাত ১১টার দিকে কয়েকজন কিশোর স্কুল মাঠে গিয়ে পতাকা উড়তে দেখে বিষয়টি স্থানীয়দের জানায়। রাতের আঁধারে জাতীয় পতাকা উড়লেও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পতাকা নামানোর তাৎক্ষণিক কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।

স্থানীয় গোলাম সরোয়ার বলেন, এই বিদ্যালয়ে কেবল সোমবার রাতেই শুধু না, এর আগেও একাধিকবার জাতীয় পতাকা রাতে উত্তোলন করা ছিল।

এদিকে, রাতের আঁধারে জাতীয় পতাকা উত্তোলিত থাকার বিষয়টি স্বীকার করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সাহেনা বেগম বলেন, সোমবার আমাদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ছিল। তাই সবাই না দেখে ভুলবশত চলে গিয়েছি। আর পতাকা নামানোর বিষয়টি আয়া দেখে।

সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আক্তারুজ্জামান বলেন, ওই প্রাথমিক বিদ্যালয়ের রাতে পতাকা উত্তোলিত থাকার বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। প্রমাণিত হলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মফিজার রহমান রাজু বলেন, ৩০ লাখ শহীদ ও তিন লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে আমরা লাল-সবুজের পতাকা পেয়েছি। এ পতাকার অবমাননা মেনে নেওয়া যায় না। স্কুলে রাতের বেলা জাতীয় পতাকা উড়ছে এটা কর্তৃপক্ষের অবহেলা।

রংপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নুর নাহার বেগম বলেন, বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছি। এ ঘটনায় বিদ্যালয়ের কেউ জড়িত থাকলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

২০১৮ সালের ডিসেম্বর মাসে মহান বিজয় দিবসের রাতেও এই বিদ্যালয়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলিত থাকার ঘটনা ঘটে। সেই সময় বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হলেও ব্যবস্থা নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

জিতু কবীর/এমআরআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]