খুলনায় এনইউবির ছাত্রের আত্মহত্যা, প্রেমিকা গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
প্রকাশিত: ০৪:৪৮ এএম, ২৫ জুন ২০২২
সুরাইয়া ইসলাম মিম

খুলনার নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের (এনইউবি) সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের ছাত্র প্রমিজ নাগের আত্মহত্যার ঘটনায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে তার প্রেমিকা সুরাইয়া ইসলাম মিমকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

শুক্রবার (২৪ জুন) সকালে নড়াইল জেলার মাসুমদিয়া এলাকার এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রমিজ মারা যাওয়ার পর থেকে মিম নড়াইলে আত্মগোপনে ছিলেন।

র‌্যাব-৬ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বজলুর রশীদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মিমকে সোনাডাঙ্গা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। মিম নড়াইল জেলার কালিপুর উপজেলার বাবুপুর গ্রামের মো. আবুল কালাম আজাদের মেয়ে।

এ বিষয়ে সোনাডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোমতাজুল হক বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মিম স্বীকার করেছেন প্রমিজ নাগের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল। তবে তাকে আরও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডের আবেদন করা হবে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই হরসিৎ মন্ডল বলেন, মিম ও প্রমিজ দুজনেই নাগ খুলনা নর্দান ইউনির্ভাসিটির সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের শিক্ষার্থী। একই বিভাগে পড়ার সুবাধে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তাদের এ সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। মিম প্রায়ই প্রমিজ নাগের ভাড়াবাড়িতে এসে দীর্ঘক্ষণ অবস্থান করার পর ওই বাসা থেকে বের হয়ে যেতেন। ২০ জুন তাদের সম্পর্কে ফাটল ধরে। ওইদিন তাদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ভারী একটি বস্তু দিয়ে প্রমিজের মাথায় আঘাত করেন মিম। তবে কী নিয়ে তাদের এ সম্পর্কের অবনতি হয় তা জানা যায়নি।

তিনি আরও বলেন, ১২৩ নং গোবরচাকা এলাকার নুর ইসলামের বাড়ির ভাড়াটিয়া মিম। তিনি নড়াইল জেলার কালিপুর উপজেলার বাবুপুর গ্রামের মো. আবুল কালাম আজাদের মেয়ে। প্রমিজের ভাই প্রীতিশ কুমার নাগ বাদী হয়ে মিমের বিরুদ্ধে আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করেন। মামলার পর থেকে মিম গা ঢাকা দেন।

এ বিষয়ে প্রমিজের ভাই প্রীতিশ কুমার নাগের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি। তবে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি।

বুধবার (২২ জুন) নগরের সোনাডাঙ্গা থানার সিটি ইন হোটেলের পেছনের একটি বাড়ি থেকে নর্দার্ন ইউনিভার্সিটির সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ বিভাগের ছাত্র প্রমিজ নাগের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। এনিয়ে ওই এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

প্রমিজ নাগ পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার সাচিয়া গ্রামের জোতিন্ময় নাগের ছেলে। আত্মহত্যার সময় তার পকেটে একটি চিঠি পায় পুলিশ। তবে তাতে কী লেখা আছে তা জানানো হয়নি।

আলমগীর হান্নান/ইএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]