গোয়াইনঘাটে বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা, আটক ১

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:০১ এএম, ২৬ জুন ২০২২
প্রতীকী ছবি

সিলেটের গোয়াইনঘাটে অরেশ নমসূত্র (৬৬) নামে এক বৃদ্ধকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে গোয়াইনঘাট উপজেলার গোয়াইন গ্রামের চেরাগ আলীর ছেলে শাহনুরকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (২৫ জুন) সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। নিহত অরেশ গোয়াইনঘাট উপজেলার গোয়াইন গ্রামের নয়ান নমসূত্রের ছেলে।

নিহতের ভাতিজী রিনা বিশ্বাস জাগো নিউজকে জানান, শুক্রবার (২৪ জুন) রাত ৮টার দিকে গোয়াইন গ্রামের মো. জমির উদ্দিনের দোকানের সামনের রাস্তায় পূর্বশত্রুতার জের ধরে অরেশের ওপর হামলার চালানো হয়। প্রতিদিনের ন্যায় শুক্রবার রাতে বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে ঘটনাস্থলে আসতে না আসতেই ওৎ পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যপুরি কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়। গোয়াইন গ্রামের সয়ফুল ইসলামের ছেলে মো. সুহেল আহমদ, চেরাগ আলীর ছেলে শাহনুর, ফরিদ মিয়ার ছেলে মো. বিলাল উদ্দিন, মিলন উদ্দিনের ছেলে মিলাদ আহমদ চাচার ওপর হামলা করেছে।

পরে স্থানীয়রা তাকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার দিনগত রাত একটায় তিনি মারা যান। শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় অরেশের ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ সৎকারের জন্য বাড়িতে নিয়ে আসা হয়।

নিহতের স্বজন ও স্থানীয়রা জানান, সোহেলদের সঙ্গে অরেশ নমসুত্রের পূর্বশত্রুতা ছিল। প্রায় সময়ই সোহেলদের সঙ্গে এ পরিবারের ঝগড়া-ঝাটি হতো। বিভিন্ন সময় সোহেলরা অরেশ নমসুত্রের কাছে চাঁদা দাবি করতো বলেও অভিযোগ করেন তারা।

গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কেএম নজরুল ইসলাম জাগো নিউজকে বলেন, গোয়াইন গ্রামের অরেশ নমসুত্র আহতের খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে থানা পুলিশ। শনিবার বিকেলে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকায় শাহনুর নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ছামির মাহমুদ/এমএএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]