১৬ লাখে বিক্রি হবে ‘রাজা-বাদশা’

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মিরসরাই (চট্টগ্রাম)
প্রকাশিত: ০৫:০১ পিএম, ০১ জুলাই ২০২২
বাঁয়ে রাজা ও ডানে বাদশা

ঈদুল আযহার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ‘রাজা-বাদশা’ নামে দুটি গরু। ঈদের বাজারে গরু দুটি ১৬ লাখ টাকা বিক্রির আশা করছেন মালিক হাজী নুরুল আলম। গরু দুটিকে দেখতে খামারে ভিড় জমাচ্ছেন মানুষ।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার ১১ নম্বর মঘাদিয়া ইউনিয়নের জাফরাবাদ গ্রামের হাজী নুরুল আলম কয়েক বছর পূর্বে ছোট্ট পরিসরে একটি গরুর খামার শুরু করেন। খামারে বেশ কয়েকটি গরু রয়েছে। গত বছর খামার থেকে ২০টি গরু বিক্রি করেন। এ বছর তিনি বড় দুটি গরু কোরবানির জন্য প্রস্তুত করেছেন। গত বছর তিনি গরু বিক্রি করে লাভ করতে না পারলেও এবার লাভের আশা করছেন তিনি।

গরুর মালিক নুরুল আলম বলেন, কোরবানির জন্য এবার অস্ট্রেলিয়া ও ফ্রিজিয়ান জাতের দুটি বড় গরু তৈরি করেছি। একটির ওজন ৯০০ কেজি, আরেকটির ওজন ৮০০ কেজি। আদর করে গরু দুটির নাম দিয়েছি ‘রাজা-বাদশা’। চার বছর ধরে গরু দুটিকে নিজস্ব জমিতে উৎপাদিত ঘাস ও খৈল ভুষি খাওয়া হয়েছে। মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর এমন মেডিসিন খাওয়ানো হয়নি। দুটি গরু দেখার জন্য একজন লোক নিয়োগ রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, কোরবানির জন্য প্রতিদিন খামারে গরু প্রদর্শন করা হচ্ছে। এখানে বিক্রি করতে না পারলে কয়েকদিন পর চট্টগ্রাম শহরে নিয়ে যাবো। দুটি গরুর মূল্য নির্ধারণ করেছি ১৬ লাখ টাকা।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) তাহমিনা আরজু বলেন, ফ্রিজিয়ান জাতের গরু এক হাজার কেজি ওজনের চেয়েও বেশি হয়। মঘাদিয়ার জাফরাবাদ গ্রামে দুটি বড় গরু রয়েছে বলে শুনেছি। দেখি আমি দুই-একদিনের মধ্যে গিয়ে দেখে আসবো।

আরএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]