চাকরি হারিয়ে দুবাইফেরত ইব্রাহিমের খামারে এখন ৩০ গরু

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মিরসরাই (চট্টগ্রাম)
প্রকাশিত: ১১:৫২ এএম, ০৩ জুলাই ২০২২
ইব্রাহিমের খামারে কোরবানির জন্য ১৪ গরু প্রস্তুত করা হয়েছে

জীবনের ২২টি বছর প্রবাসে কাটিয়েছেন মো. ইব্রাহিম। করোনাকালে চাকরি হারিয়ে খালি হাতে দেশে চলে আসেন। দেশে কিছু করে বাকি জীবন পার করার আশায় স্বপ্ন বোনেন। কিন্তু সাধ আছে, সাধ্য নেই।

নিজের কাছে যা টাকা ছিল তা দিয়ে বাড়ির মধ্যে ক্ষুদ্রাকারে একটি শেড গড়ে তোলেন। প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক থেকে ৩ লাখ টাকা ঋণ নিয়ে শুরু করেন স্বপ্ন বাস্তবায়নের কাজ। দুবছরে গড়ে তুলেছেন সমন্বিত একটি খামার। এখন তিনি স্বাবলম্বী। এলাকার বেকার যুবকদের কাছে ইব্রাহিম এখন আইডল।

খোঁজা নিয়ে জানা গেছে, ইব্রাহিমের বাড়ি চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের জাফরাবাদ গ্রামে। তার খামারের নাম দিয়েছেন নাবিলা ডেইরি ফারম। বর্তমানে ছোট বড় মিলিয়ে ৩০টি গরু আছে তার। ছাগল আছে ১৪টি।

Mir-(3)

এবারের কোরবানির জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ১৪টি গরু ও তিনটি ছাগল। বিক্রির জন্য ৭০ হাজার টাকা থেকে ১ লাখ ৭৫ হাজার টাকা দামের গরু রয়েছে খামারটিতে। কোরবানির গরু-ছাগল কিনতে প্রতিদিন খামারে লোকজন ভিড় করছেন।

মো. ইব্রাহিম বলেন, দীর্ঘ ২২বছর দুবাই ছিলাম। প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক থেকে লোন নিয়ে একটি গাভী কিনি। ধীরে ধীরে সংখ্যা বাড়তে থাক। পরবর্তীতে ইসলামী ব্যাংক থেকে ১৫ লাখ টাকা লোন নিয়ে খামারের পরিধি বড় করি।

Mir-(3)

তিনি আরও বলেন, গত বছর কোরবানির ১৫টি গরু বিক্রি করে ভালো লাভ হয়েছে। এবারের কোরবানির জন্য প্রস্তুত করেছি ১৪টি গরু। ভালো লাভে বিক্রির আশা করছি। ১৫টি অস্ট্রেলিয়ান গাভী রয়েছে। যা থেকে দৈনিক ৫৫ লিটার দুধ পাই। এসব দুধ এলাকার চাহিদা মিটিয়ে চট্টগ্রাম শহরেও পাঠানো হয়। বর্তমানে পরিবার নিয়ে ভালো আছি। ক্রমান্বয়ে খামারের আরও পরিধি বাড়াবো।

উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) তাহমিনা আরজু জাগো নিউজকে বলেন, নাবিলা ডেইরি ফারম উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ের তালিকাভুক্ত একটি খামার। প্রবাস ফেরত ইব্রাহিম আমাদের কাছ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে গরু-ছাগল পালনে দক্ষতা অর্জন করেছে। আশা করছি তিনি ভবিষ্যতে আরও ভালো করবেন।

এসজে/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]