সংবাদ সম্মেলনে পিটুনি খাওয়ার কথা ‘অস্বীকার’ অধ্যক্ষের

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি রাজশাহী
প্রকাশিত: ০৪:১৩ পিএম, ১৪ জুলাই ২০২২
এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর পাশে বসে সংবাদ সম্মেলন করেন অধ্যক্ষ সেলিম

রাজশাহী-১ (গোদাগাড়ী-তানোর) আসনের সরকারদলীয় সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরীর বিরুদ্ধে এক কলেজ অধ্যক্ষকে পিটিয়ে জখম করার অভিযোগ নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। এর মধ্যেই বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) দুপুরে রাজশাহী নগরীতে সংবাদ সম্মেলন করে এমপির হাতে পিটুনি খাওয়ার কথা অস্বীকার করেছেন গোদাগাড়ীর রাজাবাড়ী ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সেলিম রেজা।

সংবাদ সম্মেলনে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর পাশে বসে ওই অধ্যক্ষ বলেন, ঈদের আগে গত ৭ জুলাই কয়েকজন অধ্যক্ষ-উপাধ্যক্ষ মিলে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরীর সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম। এসময় অধ্যক্ষ ফোরামের কমিটি গঠন ও অভ্যন্তরীণ বিষয় নিয়ে নিজেদের মধ্যে তর্ক-বিতর্ক ও ধস্তাধস্তি হলে এমপি এসে নিবৃত করেন।

তাকে এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী কোনো মারধর করেননি বরং নিজেদের মধ্যে ধস্তাধস্তিতে আহত হয়েছেন জানিয়ে অধ্যক্ষ সেলিম রেজা দাবি করেন, এ ঘটনার পর সাংবাদিক পরিচয় গোপন করে গোয়েন্দা সংস্থায় কর্মরত বলে এক ব্যক্তি তার বাড়িতে যান। ওই ব্যক্তি তার ছবি তোলার চেষ্টা করেন ও মামলা করতে চাপ দেন। পরে মনগড়া তথ্য দিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করা হয়।

ওই সংবাদ সম্মেলনে পাশেই বসে থাকা এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী দাবি করেন, তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ তাকে হেয়প্রতিপন্ন করতে কাল্পনিক সংবাদ প্রকাশ করিয়েছে। এতে তার ও আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়েছে।

এদিকে, অধ্যক্ষ সেলিম রেজাকে মারধরের বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর ঘটনাটি তদন্তে বুধবার (১৩ জুলাই) কমিটি গঠন করেছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। তিন সদস্যের এই কমিটির আহ্বায়ক করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মোল্লা মাহফুজ আল-হোসেনকে। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (জনসংযোগ দপ্তর) আতাউর রহমানের সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য জানা যায়।

Press-Brifing-2

অভিযোগ ওঠে, গত ৭ জুলাই সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী অধ্যক্ষ সেলিম রেজাকে চড়-থাপ্পড়, কিল-ঘুষি এবং হকিস্টিক দিয়ে পিটিয়েছেন। তাকে মারধরের ঘটনায় সারাদেশে নিন্দা আর প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। পরে ঘটনা তদন্তে বুধবার একটি কমিটি করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। এর পরদিনই নিজের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সেলিম রেজাকে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এলেন এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী।

এমপি ওমর ফারুক চৌধুরী অধ্যক্ষ সেলিম রেজাকে মারধর করেছেন বলে বুধবার খবর ছড়িয়ে পড়ে। এতে বলা হয়, গোদাগাড়ীর একটি কলেজের অধ্যক্ষের স্ত্রীকে নিয়ে রাজাবাড়ী ডিগ্রি কলেজের কয়েকজন শিক্ষক আপত্তিকর মন্তব্য করেন। এর বিচার করেননি অধ্যক্ষ সেলিম রেজা। ওমর ফারুক চৌধুরী ওই আপত্তিকর কথাবার্তার অডিও শুনিয়েই অধ্যক্ষকে পেটাতে থাকেন।

তবে ওমর ফারুক চৌধুরী, অধ্যক্ষ সেলিম রেজা এবং সেদিন উপস্থিত থাকা অন্য অধ্যক্ষরাও আজকের সংবাদ সম্মেলনে সে বিষয়টি অস্বীকার করেন।

এমআরআর/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।