সন্ধ্যায় বৈঠকের পর গাড়ি চালানোর সিদ্ধান্ত: সাভারে শ্রমিক নেতা

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি সাভার (ঢাকা)
প্রকাশিত: ০৬:৩৩ পিএম, ০৬ আগস্ট ২০২২
গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকায় অনেকটা ফাঁকা সড়ক

সরকারের ঘোষিত জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে প্রভাব পড়েছে সাভারের আঞ্চলিক ও মহাসড়কে। দূরপাল্লার গণপরিবহনের দেখা মিললেও তেমন দেখা যায়নি অভ্যন্তরীণ যানবাহন। আর যেগুলো চলছে তাতে নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া। এতে বিড়ম্বনায় পড়েছেন যাত্রীরা। সন্ধ্যায় সিদ্ধান্তের পর গাড়ি চালানোর কথা ভাবা হবে বলে জানিয়েছেন সাভারের পরিবহন শ্রমিক নেতা।

শনিবার (৬ আগস্ট) দুপুরে ঢাকার প্রবেশমুখ আশুলিয়ার বাইপাইল ত্রিমোড় এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে,সড়ক অনেকটা ফাঁকা। সাধারণ দিনের তুলনায় স্থানীয়সহ দূরপাল্লার বাসের সংখ্যা অনেক কম। এছাড়া পোশাক শ্রমিকদের জন্য যে লোকাল পরিবহনগুলো সড়কে চলাচল করে সেগুলোরও দেখা মেলেনি। দূরপাল্লার পরিবহনগুলো বাস কাউন্টারগুলোকেও অলস থাকতে দেখা গেছে।

তার একটু সামনে এগোলেই দেখা যায়, সড়কের পাশে সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে আছে আশুলিয়া এক্সপ্রেস, মৌমিতা, ওয়েলকাম ও আলিফসহ কয়েকটি পরিবহনের প্রায় শতাধিক বাস।

jagonews24

কেন দাঁড়িয়ে আছে জানতে চাইলে একটি বাসের সুপারভাইজার খলিল মিয়া বলেন, ‘এখন ভাড়া না বাড়িয়ে গাড়ি চালালে শুধু লোকসানের মুখেই পড়তে হবে। আবার বেশি ভাড়া চাইলে যাত্রীদের সঙ্গে তর্ক হবে। তাই কেন্দ্র ভাড়া নির্ধারণ করার আগ পর্যন্ত এভাবেই থাকবে।

তবে হাতেগোনা কিছু পরিবহন চলতে দেখা গেছে। অতিরিক্ত ভাড়া নিয়েই যাত্রী আনা-নেওয়া সেগুলো।

একাধিক যাত্রীর অভিযোগ, যানবাহন কম থাকায় ১২০ টাকা ভাড়া হাতিয়ে নিচ্ছে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা। তবুও সেসব গণপরিবহন দীর্ঘ সময় দাঁড়িয়ে থাকার পর পাওয়া যাচ্ছে।

jagonews24

নীলাচল পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার রফিকুল জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমাদের কয়েকটি গাড়ি চলছে। তেলের দাম বৃদ্ধি পাওয়ায় ভাড়া বেশি নিয়ে তা চালাতে হচ্ছে। এটা যাত্রীদের বলেই নিচ্ছি।’

সাভারে পরিবহন শ্রমিক নেতা ও আশুলিয়া এক্সপ্রেসের পরিচালক জি এম মিন্টু জাগো নিউজকে বলেন, ‘সকাল থেকে আমরা গাড়ি বন্ধ রেখেছি। ৮০ শতাংশ গাড়ি বন্ধ রয়েছে। সন্ধ্যার পর আমাদের পরিবহনের নেতারা বর্তমান তেলের দাম বৃদ্ধির ব্যাপারে সিদ্ধান্ত দেবেন। এরপর আমরা রাস্তায় গাড়ি চালানোর কথা চিন্তা করবো।’

মাহফুজুর রহমান নিপু/এসজে/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]