জীবিকার সন্ধানে প্রবাসে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন কামাল

উপজেলা প্রতিনিধি উপজেলা প্রতিনিধি মিরসরাই (চট্টগ্রাম)
প্রকাশিত: ১০:০৭ পিএম, ০৬ আগস্ট ২০২২
প্রবাসী কামাল উদ্দিন

প্রাথমিকের গণ্ডি পেরিয়ে আর পড়ালেখা হয়নি। দরিদ্র পরিবারের হাল ধরতে জীবিকার তাগিদে পাড়ি জমান প্রবাসে। সেখানেও খুব বেশি ভালো ছিলেন না। তারপরও যা আয় করেছেন তা দিয়ে মা-বাবা, স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কোনোভাবে চলে যাচ্ছিল সংসার। হটাৎ এক আচমকা ঝড় যেন সব তছনছ করে দিয়েছে।

গত মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন প্রবাসী কামাল উদ্দিন। তিনি মিরসরাই উপজেলার কাটাছরা ইউনিয়নের বাড়িয়াখালী এলাকার মো. নিজাম উদ্দিনের ছেলে। দেশটির আজমান শহরে রাস্তা পার হওয়ার সময় গাড়ি চাপায় তিনি মারা যান।

শনিবার (৬ আগস্ট) সকালে তার কফিন দেশে আনা হয়েছে। বাদ আসর জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় কামালকে।

প্রবাসী কামাল উদ্দিন ও পারভিন আক্তার শিল্পীর বিয়ে হয় আট বছর আগে। এক বছর পর তাদের প্রথম কন্যা সন্তান ফাহমিদা আক্তার কলি (৭) জন্মগ্রহণ করে। ছোট মেয়ে মরিয়ম বিবির বয়স তিন বছর।

নিহত কামালের প্রতিবেশী খাজা মাঈন উদ্দিন জানান, শনিবার চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কামালের কফিন আসে। এরপর অ্যাম্বুলেন্সে মরদেহ বাড়িতে আনার পর বাদ আসর জানাজা শেষে দাফন করা হয়েছে।

তিনি বলেন, খুব খারাপ লাগছে ছোট্ট দুটি অবুঝ শিশুর জন্য। তাদের এখনো কিছু বোঝার বয়স হয়নি। বাবার কফিন দেখে ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে আছে।

মাঈন উদ্দিন আরও বলেন, গত মঙ্গলবার রাতে আজমান শহরে রাস্তা পার হওয়ার সময় কামালকে একটি দ্রুতগামী গাড়ি চাপা দেয়। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। সে দীর্ঘ ১৭-১৮ বছর ধরে প্রবাসে ছিল। খুব বেশি ভালো করতে পারেনি। এখন তার স্ত্রী, মেয়ে দুটোর কি হবে বুঝতে পারছি না।

৭নং কাটাছরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম চৌধুরী হুমায়ুন বলেন, দুবাইতে সড়ক দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া কামালকে আজ দাফন করা হয়েছে। মরদেহ দেশে আনতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র পরিষদ থেকে ব্যবস্থা করে দিয়েছি।

এমআরআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]