ভুল চিকিৎসায় নষ্ট হলো সিআইপির মেয়ের চোখ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ময়মনসিংহ
প্রকাশিত: ০৯:৪৩ এএম, ১১ আগস্ট ২০২২
ভুক্তভোগী মাহজাবীন হক মাশা

ভুল চিকিৎসায় সিআইপি আমিনুল হক শামীমের মেয়ে মাহজাবীন হক মাশার চোখ নষ্ট হওয়ার অভিযোগে চিকিৎসক প্রফেসর ডাক্তার দীপক নাগের নামে আদালতে মামলা করা হয়েছে।

ডাক্তার দীপক নাগ ঢাকার সোবহানবাগ এলাকার দীন মো. চক্ষু হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্স সেন্টারের চক্ষু বিশেষজ্ঞ।

বুধবার (১০ আগস্ট) দুপুরে ময়মনসিংহের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে এফবিসিসিআইয়ের পরিচালক মো. সামিউল হক সাফা বাদী হয়ে অভিযোগ দায়ের করেন। পরে বিচারক আব্দুল হাই অভিযোগ আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেন।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এবিএম নুরুজামান খোকন বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশকে নথিভুক্ত করার আদেশ দিয়েছেন।

মামলা পরিচালকারী অন্য আইনজীবীরা হলেন, জেলা আইনজীবী সমিতির সিনিয়র অ্যাডভোকেট এএইচএম খালেকুজ্জামান এবং পীযুষ কান্তি সরকার।

ভুক্তভোগী মাহজাবীন হক মাশা জেলা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি এফবিসিসিআইয়ের সাবেক পরিচালক ও সিআইপি মো. আমিনুল হক শামীমের জ্যেষ্ঠ কন্যা।

সূত্র জানায়, গত জুন মাসে মাহজাবীন হক মাশার চোখের সমস্যা হওয়ায় দীন মো. চক্ষু হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্স সেন্টারে চক্ষু বিশেষজ্ঞ প্রফেসর ডাক্তার দীপক নাগের চিকিৎসা নেন।

এ সময় ডাক্তার দীপক নাগ মাশার চোখে লেজার প্রতিস্থাপন করেন। কিন্তু লেজার লাগানোর পর চোখে অন্ধকার দেখা শুরু করে মাশা।

এই অবস্থায় মাশাকে জাতীয় চক্ষু ইনস্টিটিউট হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা জানান, লেজার স্থাপনের কারণে মাশার চোখের ৩৩ ভাগ রেটিনা চিরতরে নষ্ট হয়ে গেছে।

পরে মাশাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য থাইল্যান্ডের বামরুন গ্র্যাড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানান ভুল চিকিৎসার কারণে মাশার চোখের রেটিনার ৩৩ ভাগ নষ্ট হয়ে গেছে। পরে মাহজাবীন হক মাশার ভাই মো. সামিউল হক সাফা বাদী হয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেন।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফারুক হোসেন বলেন, আদালতের নির্দেশনা পেয়েই মামলা নথিভুক্ত করার প্রক্রিয়া চলছে। মামলা পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ বিষয়ে জানতে ডাক্তার দীপক নাগের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি।

মঞ্জুরুল ইসলাম/এফএ/জেআইএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।