চাহিদার সঙ্গে দাম বাড়ছে সামুদ্রিক মাছের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
প্রকাশিত: ১১:০৩ এএম, ০১ অক্টোবর ২০২২

খুলনার বাজারে দিনের পর দিন সামুদ্রিক মাছের চাহিদা বাড়ছে। একই সঙ্গে দামও বাড়ছে এসব মাছের। এক সময় বাজারের ১০-১৫ শতাংশ সামুদ্রিক মাছ দেখা গেলেও এখন বেড়ে অর্ধেকে দাঁড়িয়েছে।

খুলনার বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা যায়, লইট্টা, শাপলাপাতা, রূপচাঁদা, ইলিশ, টুনা, ছুরি, করাতসহ বিভিন্ন ধরনের মাছ বিক্রি হচ্ছে। তবে বাজারে মাছের দাম কিছুটা বেশি।

নগরীর ময়লাপোতা সন্ধ্যা বাজারের ব্যবসায়ী শাফায়েত বলেন, অনাবৃষ্টিতে খাল বিল শুকিয়ে যাওয়ায় মিঠা পানির মাছ কমতে শুরু করেছে। খামারের মাছ মানুষ কিনতে চান না। ফলে বাজারে সামুদ্রিক মাছের চাহিদা বেড়েছে।

khulna-Sea-Fish

ব্যবসায়ীরা জানান, বাজারে মেদ মাছ প্রতি কেজি ১৫০-১৮০ টাকা, ভোলা মাছ ১৫০-২০০ টাকা কেজি, ইলিশ এক কেজি ওজনের ১০০০-১১০০ টাকা, রূপচাঁদা ৬০০ টাকা, কংকন ১৫০-২৮০ টাকা, ছুরি মাছ ৭-৮টিতে কেজি ২৫০-২৬০ টাকা, লইট্টা ৯০-১২০ টাকা, টুনা ১৫০ টাকা, ভোলা ২৫০ টাকা, শাপলাপাতা ১৫০ টাকা, দাতিনা ৫০০ টাকা, ছুরি মাছ ৪৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মলাঢেলা বিক্রি হচ্ছে ৩০০-৪০০ টাকায়।

নাসিমা রহমান নামের এক ক্রেতা জানান, সপ্তাহে দুদিন বাসায় সামুদ্রিক মাছ রান্না করি। লোনা পানির মাছ শরীরের জন্য উপকারী। এজন্য এ মাছ নিয়মিত কিনি।

khulna-Sea-Fish

খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মইনুল ইসলাম বলেন, সামুদ্রিক মাছে রয়েছে ওমেগা-৩ নামক ফ্যাটি এসিড যা হৃদযন্ত্রের জন্য উপকারী। বেশিরভাগ সামুদ্রিক মাছে ভিটামিন ‘এ’ ও ‘ডি’ থাকে। এটি মানবদেহের শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে।

খুলনা সিটি করপোরেশনের আরবান হেলথ কেয়ারের চিকিৎসক ডা. আলাউদ্দিন আহমেদ বলেন, সামুদ্রিক মাছের পুষ্টিগুণ অনেক বেশি। আমাদের কাছে প্রায়ই হৃদরোগে আক্রান্ত রোগী আসেন। মেডিসিনের পাশাপাশি তাদের শারীরিক ব্যায়াম ও সামুদ্রিক মাছ খাওয়ার পরামর্শ দেই।

আলমগীর হান্নান/আরএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।