তিন বছর বাড়ি ভাড়া বৃদ্ধি নয় : শ্র‌মিক‌দের কর্ম‌বির‌তি প্রত্যাহার


প্রকাশিত: ০৫:২৩ পিএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৬

সাভারের আশুলিয়ায় তৈ‌রি পোশাক শ্র‌মিক‌দের কর্ম‌বির‌তি প্রত্যাহার করো হ‌য়ে‌ছে। সোমবার রাতে রাজধানীর মিন্টু‌ রো‌ডে নৌপরিবহনমন্ত্রীর বাসভবনে  কারখানার মা‌লিক, শ্রমিক ও সরকা‌র এ তিন প‌ক্ষের বৈঠক শে‌ষে এ সিদ্ধান্ত নেন শ্র‌মিকেরা।

বৈঠ‌কে বা‌ণিজ্যমন্ত্রী তোফা‌য়েল আহ‌মেদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খাঁন, শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাত উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, সাভা‌রের সংসদ সদস্য ডা. এনাম আহ‌মেদ, পুলিশ মহাপরিদর্শক (আইজিপি) এ কে এম শহীদুল হক, র‌্যাবের মহাপরিচালক (ডিজি) বেনজীর আহমেদ, এফবিসিসিআইর সিনিয়র সহ-সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, সাবেক সভাপতি এ কে আজাদ, বিজিএমইএর সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান, সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলামসহ শ্রমিক নেতারা উপস্থিত ছি‌লেন।

বৈঠ‌ক শে‌ষে বা‌ণিজ্যমন্ত্রী তোফা‌য়েল আহ‌মেদ ব‌লেন, সাভা‌রের আশু‌লিয়া এলাকায় আগামী তিন বছ‌রে কো‌নো বা‌ড়ি ভাড়া বাড়া‌তে পার‌বে না। এছাড়াও যেসব কারখানায় ‌বেতন-ভাতা নি‌য়ে সমস্যা র‌য়ে‌ছে তা মা‌লিকপ‌ক্ষের স‌ঙ্গে ব‌সে সমাধান করা হ‌বে।

আগামীকাল থে‌কে সবাই কাজে যা‌বে। যারা কাজ কর‌বে না তারা বেতন পা‌বে না। তারপরও য‌দি স্বাভা‌বিক অবস্থায় ফি‌রে না আ‌সে তাহ‌লে ব্যবস্থা নেয়া হ‌বে।

এ সময় সব শ্র‌মিক সংগঠ‌নের পক্ষ থে‌কে শ্র‌মিক নেতা র‌ফিকুল ইসলাম সুজন ব‌লেন, আমা‌দের কর্ম‌বি‌রতি প্রত্যাহার করা হ‌লো। আগামীকাল থে‌কে আশু‌লিয়ায় কো‌নো কারখানা বন্ধ থাক‌বে না। আমরা সবাই কাল থে‌কে কাজ কর‌বো।

উল্লেখ্য, ন্যূনতম মজুরি বাড়ানোর পাশাপাশি নানা অজুহাতে শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ, কোনো কারণে ছাঁটাই হলে নিয়ম অনুযায়ী প্রাপ্য পরিশোধ এবং ছুটিকালীন বেতন বহাল রাখার দাবিতে গত সোমবার থেকে আন্দোলন শুরু করেন ওই এলাকার তৈরি পোশাক শ্রমিকেরা।

ওইদিন আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার উইন্ডি গ্রুপের শ্রমিকেরা কাজ বন্ধ করে বিক্ষোভ করেন। তারপর গত এক সপ্তাহ ধরে শ্রমিকেরা একই দাবিতে আন্দোলন করে আসছিলেন। আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা জানিয়ে আজ সোমবার ২৫টির মতো কারখানার পোশাকশ্রমিকেরা কাজ বন্ধ করে দেন।

এসআই/বিএ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]