জাপান বিজ্ঞান কংগ্রেসে ভাষণ দিলেন ড. ইউনূস

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:১৩ পিএম, ২৭ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০১:২২ পিএম, ২৭ নভেম্বর ২০১৭
জাপান বিজ্ঞান কংগ্রেসে ভাষণ দিলেন ড. ইউনূস

জাপান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সংস্থা আয়োজিত ‘জাপান বিজ্ঞান কংগ্রেসে’ প্রধান বক্তা হিসেবে ভাষণ দিলেন নোবেল লরিয়েট প্রফেসর মুহাম্মদ ইউনূস। সরকারি প্রতিষ্ঠান জাপান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সংস্থা জাতীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি কর্মসূচিতে দিক নির্দেশনা ও অর্থায়ন করে থাকে।

সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট প্রফেসর মিশিনারি হামাগুচি বিভিন্ন সামাজিক লক্ষ্য অর্জনে বিজ্ঞান গবেষণাকে কীভাবে জোরদার করা যায় সে বিষয়ে সংস্থাটিকে পরামর্শ দেবার জন্য প্রফেসর ইউনূসকে আমন্ত্রণ জানান। তার বক্তৃতায় প্রফেসর ইউনূস বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি গবেষণার লক্ষ্য এবং গবেষণালব্ধ জ্ঞান ও প্রযুক্তির প্রয়োগ নিয়ে নতুন করে ভেবে দেখতে বিজ্ঞানীদের প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, বিজ্ঞান গবেষণাকে অবশ্যই মানব সমাজের চূড়ান্ত কাঙ্ক্ষিত কাঠামোর আলোকে পরিচালিত হতে হবে এবং গবেষণার উদ্দেশ্য হতে হবে সেই লক্ষ্য দক্ষ ও সুনির্দিষ্টভাবে অর্জন করা। আর্টিফিশাল ইনটেলিজেন্সের মতো প্রযুক্তি, যদি তা গণহারে বেকারত্ব সৃষ্টির প্রক্রিয়া শুরু করে এ কাঙ্ক্ষিত লক্ষের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ কি-না তা নিয়ে তিনি প্রশ্ন তোলেন।

younus

কোনো কোনো ক্ষেত্রে আর্টিফিশাল ইনটেলিজেন্স প্রয়োগ করা হবে তা নির্ধারণের জন্যও তিনি আহ্বান জানান। তিনি এখনই আর্টিফিশাল ইন্টেলিজেন্স প্রয়োগ করা যায় এমন দুটি উপযুক্ত ক্ষেত্রের কথা প্রস্তাব করেন- স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষা। আর্টিফিশাল ইনটেলিজেন্সকে কোনোভাবেই মানুষকে বেকার করে দেবার অধিকার দেয়া যাবে না।

জাপান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সংস্থা সমাজের বিভিন্ন সমস্যা সমাধান করতে উপযুক্ত প্রযুক্তি সৃষ্টি ও অভিযোজনের লক্ষে সামাজিক ব্যবসা গড়ে তোলার জন্য ইউনূস সেন্টারের সঙ্গে যৌথভাবে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করে। এজন্য অবিলম্বে একটি সহযোগিতা কাঠামো চূড়ান্ত করা হবে বলে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এছাড়াও প্রফেসর ইউনূস বিজনেস ইউনিভার্সিটি অব জাপান এবং টেলিকম ফাউন্ডেশনের মধ্যে একটি সহযোগিতা চুক্তি নিয়েও আলোচনা করেন।

তিনি জাপানে সম্ভাব্য সামাজিক ব্যবসা জয়েন্ট ভেঞ্চার পার্টনারদের সঙ্গে বৈঠক করেন এবং জাপানে গ্রামীণ আমেরিকার আদলে একটি গ্রামীণ রেপ্লিকেশন প্রোগ্রাম ‘গ্রামীণ নিপ্পন’ চালুর উদ্দেশ্যে আয়োজিত প্রস্তুতি সভায়ও যোগ দেন।

এমআরএম/আইআই