ব্যবসা শিখতে বাণিজ্য মেলায় চাকরি

সায়েম সাবু
সায়েম সাবু , জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৩ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮
ব্যবসা শিখতে বাণিজ্য মেলায় চাকরি
ছবি : মাহবুব আলম

‘মেনি ম্যান, মেনি মাইন্ডস’ উক্তিটির যথার্থ প্রয়োগ পাচ্ছি মেলায় অংশ নিয়ে। স্বপ্ন দেখার আগে প্রস্তুতি নিতে হয়। অপ্রস্তুত হয়ে স্বপ্ন দেখলে, তা দুঃস্বপ্নও হতে পারে। ব্যবসা আমার স্বপ্ন। আর এর জন্য সবার আগে মানুষের মন বুঝতে হয়। মানুষের মন বুঝতেই এক মাসের জন্য বাণিজ্য মেলায় চাকরি নিয়েছি। বুঝছি, নানা জনের নানা মত।

বলছিলেন উদ্যোমী তরুণী লামিয়া জাহান স্বর্ণা। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটির ৬ষ্ঠ সেমিস্টারের ছাত্রী। প্রাণবন্ত, উচ্ছ্বাস, আত্মবিশ্বাসী লামিয়ার চোখে মুখে সোনালী স্বপ্ন ঘুরে ফিরছে যেন। বাণিজ্য মেলায় তানিন প্যাভিলিয়নের অস্থায়ী ভিত্তিতে চাকরি নিয়েছেন এক মাসের জন্য।

পরিবারকে সাপোর্ট করা বা সখের বশে লামিয়ার এই চাকরি করা নয়। ভবিষ্যতে ব্যবসায় পত্তন গড়বেন, আর এ জন্যই অভিজ্ঞতার ঝুড়িতে হাজারও মানুষের মন কিনতে এসেছেন। হাস্যজ্জ্বল কথার মালা গেঁথে মন কিনছেনও বটে। শো-রুমে ক্রেতা প্রবেশ করতেই মিষ্টি হাসির বান খুলে দিচ্ছেন লামিয়া। সবাই যেন অতি চেনা, অতি আপন ওর। ক্লান্তি নেই, বিশ্রাম নেই। ঠিক যেন অতিথিকে ঘরের আসবাব ঘুরে ঘুরে দেখাচ্ছেন।

Lamia-1

ক্রেতা ছলেই লামিয়ার সঙ্গে আলাপ। পরিচয় পেয়ে মেলে ধরলেন মনের দরজা। তাতে একরাশ স্বপ্ন যেন সুপ্ত অবস্থায় ঘুমিয়ে আছে। গত বছরও এক মাসের জন্য চাকরি নিয়েছিলেন বাণিজ্য মেলায়। অভিজ্ঞতার ঝুলি এবার অনেকটাই পূর্ণ। বেড়ে ওঠেছেন সাভারে। এখন পরিবারের সঙ্গে মোহাম্মদপুরে থাকেন। বাবার ব্যবসা ঢাকাতেই।

লামিয়া বলেন, পড়া শেষ করেই ব্যবসায় হাত দেব। বাবা ব্যবসায়ী। মূলত বাবাকে দেখেই স্বপ্ন দেখেছি। চাকরির পেছনে দৌঁড়ানোর কোনো ইচ্ছা নেই। ব্যবসায় মন দেব, বাবাও তা জানেন।

অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্যই মেলায় চাকরি নেয়া উল্লেখ করে এই তরুণী বলেন, জীবনে সফল হতে চাই। আর এর জন্য সবার আগে মানুষের মন বুঝতে পারা জরুরি। কে কি চায়, কার সঙ্গে কিভাবে কথা বলতে হয়, তা শেখার বিশাল ক্ষেত্র হচ্ছে বাণিজ্যে মেলা। দারুণ লাগছে।

এএসএস/এমআরএম/পিআর