টানা দুই সপ্তাহ পতনে শেয়ারবাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৬ পিএম, ১৯ জানুয়ারি ২০১৮

দরপতনের বৃত্তে পড়েছে দেশের শেয়ারবাজার। শেষ সপ্তাহে (১৪-১৮ জানুয়ারি) দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। একই সঙ্গে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। ফলে টানা দুই সপ্তাহ পতনের মধ্যেই থাকলো শেয়ারবাজার।

গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ৫৭ দশমিক শূন্য ৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৯২ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমে হয়েছিল ১২৩ দশমিক ৫২ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৯৬ শতাংশ।

অপর দুটি সূচকের মধ্যে শেষ সপ্তাহে ডিএসই-৩০ কমেছে ১২ দশমিক ৩৮ পয়েন্ট বা দশমিক ৫৫ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমেছিল ৪১ দশমিক ৭১ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ৮২ শতাংশ।

আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের সপ্তাহের তুলনায় ১২ দশমিক ৩৭ পয়েন্ট বা দশমিক ৮৯ শতাংশ বেড়েছে। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি কমে ১৬ দশমিক শূন্য ৫ পয়েন্ট বা ১ দশমিক ১৪ শতাংশ।

শেষ সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৩৮টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ৮৩টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ২৩৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৯টির দাম।

মূল্য সূচকের বড় পতনের পাশাপাশি শেষ সপ্তাহে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৩৭৪ কোটি ৬৮ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৫৫৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ১৮৩ কোটি ১৯ লাখ টাকা বা ৩২ দশমিক ৮৪ শতাংশ।

গড় লেনদেনের পাশাপাশি মোট লেনদেনের পরিমাণও কমেছে। সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৮৭৩ কোটি ৪৪ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয়েছে ২ হাজার ২৩১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ৩৫৮ কোটি ৬ লাখ টাকা।

গত সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৮৬ দশমিক ২৭ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এছাড়া বাকি ৭ দশমিক শূন্য ২ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ২ দশমিক ৮৮ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত এবং ৩ দশমিক ৮৩ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের।

এদিকে গত সপ্তাহে মূল্য সূচকের পাশাপাশি ডিএসইর বাজার মূলধনের পরিমাণও কিছুটা কমেছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৪ লাখ ১৮ হাজার ৮১৮ কোটি টাকা। যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৪ লাখ ২০ হাজার ৯১৩ কোটি টাকা।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যালের শেয়ার। কোম্পানিটির ১৫৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৮ দশমিক ৩৮ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা গ্রামীণফোনের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৭৪ কোটি ৭ লাখ টাকা, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৩ দশমিক ৯৫ শতাংশ। ৬০ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইফাদ অটোস।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- ড্রাগন সোয়েটার, বিডি থাই অ্যানুমেলিয়াম, সিটি ব্যাংক, ন্যাশনাল টিউবস, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন, ন্যাশনাল ব্যাংক এবং শাহজালাল ইসলামী ব্যাংক।

এমএএস/আরএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :