বোনাস শুক্রবারে মেলায় জনসমাগম কম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৫ পিএম, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

২৩তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা শেষ হওয়া কথা ছিল ৩১ জানুয়ারি। কিন্তু ব্যবসায়ীদের আবেদনে সাড়া দিয়ে মেলার সময় বাড়ানো হয় চারদিন। এই সময় বাড়ানোর আগে গত ২৬ জানুয়ারি ছিল নির্ধারিত সময়ের মেলার শেষ শুক্রবার। সে হিসেবে অনেক ক্রেতা-দর্শনার্থী ওইদিন শেষ শুক্রবার মনে করে ভিড় জমিয়েছিলেন। ২৮ জানুয়ারি এই মেলার সময় চারদিন বাড়ানোর কথা ঘোষণা করা হয়। তাই আজ শুক্রবার হলো মেলার বোনাস শুক্রবার।

এই বাড়তি একটি শুক্রবার পেয়ে রাজধানী ও আশপাশের বাসিন্দারা ছুটে আসছেন মেলায়। তবে অন্য শুক্রবারের তুলনায় মেলা প্রাঙ্গণে নামা মানুষের ঢল কিছুটা কম। তারপরও যারা আসছেন তাদের সিংহভাগই মেলা থেকে কিছু না কিছু কিনছেন।

মেলা মাঠের ইজারাদার প্রতিষ্ঠান মীর ব্রাদার্সের মালিক মীর শহিদুল আলম জাগো নিউজকে বলেন, দর্শনার্থী মোটামুটি আসছে। তবে আগের শুক্রবারের তুলনায় দর্শনার্থী অনেক কম। আমরা যতটা দর্শনার্থী আশা করেছিলাম তার ধারে-কাছেও নেই।

মেলা প্রাঙ্গণে গিয়ে দেখা গেছে, বরাবরের মতো আজ সকাল ১০টার দিকে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের জন্য মেলার গেট খুলে দেয়া হয়। এর পরপরই মেলা প্রাঙ্গণে প্রবেশ করতে থাকেন দর্শনার্থীরা। বেলা ১২টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের উপস্থিতি ছিল বেশ কম। তবে জুমার নামাজের পর বাড়তে থাকে দর্শনার্থীর সংখ্যা। দেখতে দেখতে বিকেলের মধ্যে মেলা প্রাঙ্গণ অনেকটাই ভরে যায়।

mela

এবারের ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায়ও দেশি বিভিন্ন বড় প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বেশকিছু বিদেশি প্রতিষ্ঠান ও প্যাভিলিয়ন বসেছে। এর পাশাপাশি দেশীয় বেশকিছু ছোট প্রতিষ্ঠানও মেলায় স্টল দিয়ে বসেছে। মেলার প্রথমদিকে সব প্যাভিলিয়ন ও স্টলেই ক্রেতা-দর্শনার্থীর উপস্থিতি ছিল বেশ কম। তবে সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে ক্রেতা-দর্শনার্থীর উপস্থিতি।

মূলত মেলার ১৫দিন যাওয়ার পরই ক্রেতা-দর্শনার্থীদের সমাগম বাড়তে থাকে। তবে গত ২৮ জানুয়ারি মেলার সময় চারদিন বাড়ানোর ঘোষণা আসার পর দর্শনার্থীদের চাপ কিছুটা কমে যায়। ২৯ জানুয়ারি থেকে ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ক্রেতা-দর্শনার্থীর উপস্থিতি শেষ সময়ের তুলনায় কিছুটা কমে যায়। আজ শুক্রবার সেই অবস্থার কিছুটা উন্নতি হলেও আগের শুক্রবারগুলোর তুলনায় কম জনসমাগম।

নববধূসহ মেলায় ঘুরতে আসা মিরপুরের আবু সালেহ সায়াদাত বলেন, আমরা দুজনই চাকরিজীবী। আসি আসি করে এতোদিন মেলায় আসা হয়নি। আজ সুযোগ পেয়ে মেলায় চলে আসলাম। ইচ্ছে আছে মেলা থেকে সংসারের প্রয়োজনীয় কিছু সামগ্রী কিনবো।

গাজীপুর থেকে আসা আবুল খায়ের বলেন, ৩০ জানুয়ারি মেলায় আসবো বলে সময় ঠিক করেছিলাম। কিন্তু মেলার সময় বাড়ানোর কারণে ওই দিন আসা হয়নি। আজ সবাই মিলে চলে আসলাম। বেতনের টাকা হাতে পেয়েছি। সংসারের জন্য প্রয়োজনীয় কিছু সামগ্রী কিনবো। এর পাশাপাশি ছেলে-মেয়ের কিছু পোশাক কেনার ইচ্ছা আছে।

এমএএস/জেডএ/আইআই

আপনার মতামত লিখুন :