হিমায়িত মাছের বরফ ও আনুষঙ্গিক উপাদানেও নগদ সহায়তা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১৫ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

দেশের রফতানি বাণিজ্যকে উৎসাহিত করতে ২০০২ সাল থেকে প্রতিবছর হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রফতানি খাতে নগদ সহায়তা দিয়ে আসছে সরকার। এবার হিমায়িতকরণ প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বরফ আচ্ছাদন এবং ব্যবহৃত আনুষঙ্গিক আবশ্যিক উপাদান হিমায়িত মাছের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে গণ্য করে রফতানি ভর্তুকি বা নগদ সহায়তার আওতায় নিয়ে এল সরকার।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রা নীতি বিভাগ থেকে এক সার্কুলার জারির মাধ্যমে নগদ সহায়তা প্রদানের নির্দেশনা স্পষ্ট করা হয়েছে। এ নির্দেশনা বিদেশি মুদ্রায় লেনদেনে নিয়োজিত সব অনুমোদিত ডিলার ব্যাংকগুলোকে জানিয়ে দেয়া হয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, হিমায়ন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে প্রস্তুতকৃত হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রফতানিতে নগদ সহায়তা প্রযোজ্য। এ বিষয়ে স্পষ্টীকরণ করা যাচ্ছে যে হিমায়ন প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে বরফ আচ্ছাদন এবং ব্যবহৃত আনুষঙ্গিক আবশ্যিক উপাদান হিমায়িত মাছের অবিচ্ছেদ্য অংশ হিসেবে গণ্য হবে।

এর আগে, ২০০২ সালের ১২ ডিসেম্বর এক সার্কুলারের মাধ্যমে হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রফতানিতে নগদ সহায়তা প্রদানের বিষয়ে সরকারি সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে সার্কুলারপত্রের মাধ্যমে হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রফতানির ক্ষেত্রে আইকিউএফ রিটেইল প্যাকের সংজ্ঞা, প্যাকেটের সর্বোচ্চ ওজন, ইউনিট প্রতি (পাউন্ড) এফওবি মূল্যের সিলিংয়ের নির্দেশনা দেয়া হয়।

দেশের রফতানি বাণিজ্যকে উৎসাহিত করতে ওই সময় থেকে প্রতিবছরই হিমায়িত চিংড়ি ও অন্যান্য মাছ রফতানি খাতে নগদ সহায়তা দিয়ে আসছে সরকার। চলতি ২০১৭-১৮ অর্থবছরে হিমায়িত চিংড়ি রফতানিতে বরফ আচ্ছাদনের হার ২০ শতাংশ পর্যন্ত হলে রফতানির ওপর ১০ শতাংশ নগদ সহায়তা পাবেন রফতানিকারকরা। এ ছাড়া বরফ আচ্ছাদানের হার ২০-৩০ শতাংশ পর্যন্ত থাকলে ৯ শতাংশ নগদ সহায়তা, বরফ আচ্ছাদনের হার ৩০-৪০ শতাংশ পর্যন্ত থাকলে ৮ শতাংশ নগদ সহায়তা এবং বরফ আচ্ছাদনের হার ৪০ শতাংশের বেশি হলে ৭ শতাংশ নগদ সহায়তা পাবেন রফতানিকারকরা।

চিংড়ি ছাড়া অন্যান্য মাছ রফতানির ক্ষেত্রে বরফ আচ্ছাদনের হার ২০ শতাংশ পর্যন্ত থাকলে ৫ শতাংশ নগদ সহায়তা, বরফ আচ্ছাদনের হার ২০-৩০ শতাংশ পর্যন্ত হলে ৪ শতাংশ নগদ সহায়তা, বরফ আচ্ছাদনের হার ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ পর্যন্ত হলে ৩ শতাংশ নগদ সহায়তা এবং বরফ আচ্ছাদনের হার ৪০ শতাংশের বেশি হলে ২ শতাংশ হারে নগদ সহায়তা পাবেন রফতানিকারকরা।

এমইউএইচ/এআরএস/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :