উত্থান-পতন সমান সমান

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ১৪ জুন ২০১৮

শেষ সপ্তাহে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) যে কয়টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে, কমেছে ঠিক তার সমপরিমাণ। অর্থাৎ উত্থান ও পতন সমান সমান অবস্থানে রয়েছে।

দামের দিক থেকে উত্থান পতনের এই সমতা থাকলেও ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ও বাছাই করা সূচক কমেছে। তবে বেড়েছে বাজার মূলধন ও গড় লেনদেনের পরিমাণ। অবশ্য মোট লেনদেনের পরিমাণ কম হয়েছে। এর কারণ এই সপ্তাহে দুই কার্যদিবস কম লেনদেন হয়েছে।

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে ডিএসইর বাজার মূলধন দাঁড়িয়েছে ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৯০০ কোটি টাকা, যা তার আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৩ লাখ ৭৯ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকা।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স কমেছে ১ দশমিক ৪৫ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ২২ দশমিক ৭৯ পয়েন্ট বা দশমিক ৪৩ শতাংশ।

অপর দুটি সূচকের মধ্যে এ সপ্তাহে ডিএসই-৩০ কমেছে ১৯ দশমিক ৮৭ পয়েন্ট বা ১ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এ সূচকটি বাড়ে ৩ দশমিক শূন্য ৮ পয়েন্ট বা দশমিক ১৬ শতাংশ।

প্রধান সূচক ও বাছাইকৃত সূচক কমলেও বেড়েছে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক। এ সূচকটি বেড়েছে দশমিক ১৪ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ১ শতাংশ। আগের সপ্তাহে এই সূচকটি কমে ছিল দশমিক ২৭ পয়েন্ট বা দশমিক শূন্য ২ শতাংশ।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪২টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে ১৫০টির দাম আগের সপ্তাহের তুলনায় বেড়েছে। অপরদিকে দাম কমেছে ১৫০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪২টির দাম।

সপ্তাহের প্রতি কার্যদিবসে ডিএসইতে গড়ে লেনদেন হয় ৪৩৮ কোটি ৫৩ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৪২৪ কোটি ১৩ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন বেড়েছে ১৪ কোটি ৪০ লাখ টাকা বা ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

আর এই সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে মোট লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ৩১৫ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে লেনদেন হয় ২ হাজার ১২০ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। সে হিসাবে মোট লেনদেন কমেছে ৮০৫ কোটি ৯ লাখ টাকা। অবশ্য এ সপ্তাহের বুধবার শবেকদর ও বৃহস্পতিবার ঈদুল ফিতারের ছুটি উপলক্ষে লেনদেন বন্ধ ছিল। ফলে সপ্তাহটিতে দুই কার্যদিবস কম লেনদেন হয়েছে।

এই সপ্তাহে মোট লেনদেনের ৮৭ দশমিক ৭২ শতাংশই ছিল ‘এ’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের দখলে। এ ছাড়া বাকি ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ ‘বি’ ক্যাটাগরিভুক্ত, ৪ দশমিক ৮০ শতাংশ ‘এন’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের এবং ১ দশমিক ১৯ শতাংশ ‘জেড’ ক্যাটাগরিভুক্ত কোম্পানির শেয়ারের।

সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে টাকার অঙ্কে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয় ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশনের শেয়ার। কোম্পানিটির ৬৭ কোটি ১০ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে, যা সপ্তাহজুড়ে হওয়া মোট লেনদেনের ৫ দশমিক ১০ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ফার্মা এইডের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৪৫ কোটি ২৭ লাখ টাকা, যা সপ্তাহের মোট লেনদেনের ৩ দশমিক ৪৪ শতাংশ। ৪৪ কোটি ৩৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে মুন্নু সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- স্কয়ার ফার্মাসিটিক্যাল, গ্রামীণ ফোন, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের, বেক্সিমকো, খুলনা পাওয়ার, ইন্ট্রিকো রিফুয়েলিং এবং লিগাসি ফুটওয়ার।

এমএএস/জেডএ/পিআর