আবার ঊর্ধ্বমুখী শেয়ারবাজার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:২৯ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০১৯

দরপতনের এক কার্যদিবস পরই মঙ্গলবার দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্যসূচক বেড়েছে। তবে কিছুটা কমেছে লেনদেন।

সোমবার ডিএসইতে ১৪ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ ১ হাজার ১৪৬ কোটি ৩২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছিল। মঙ্গলবার লেনদেন হয়েছে ১ হাজার ১৩৯ কোটি ৩১ লাখ টাকার শেয়ার। সে হিসাবে আগের কার্যদিবসের তুলনায় আজ লেনদেন কমেছে ৭ কোটি ১ লাখ টাকা।

এদিকে মঙ্গলবার লেনদেন কিছুটা কমলেও বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া মোট ১৫৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে দাম কমার তালিকায় স্থান করে নিয়েছে ১৪৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার। অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ায় ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ২৭ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৮৬৩ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্যসূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ৪ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৩৩০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় ৩ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ২৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

টাকার অংকে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে খুলনা পাওয়ারের শেয়ার। মঙ্গলবার কোম্পানিটির মোট ৪৫ কোটি ৬২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়। দ্বিতীয় স্থানে থাকা বিবিএস ক্যাবলসের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৮ কোটি ৩৪ লাখ টাকার। ২৭ কোটি ৮৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে অলিম্পিক ইন্ডাস্ট্রিজ লি.।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- অ্যাক্টিভ ফাইন্যান্স, ফ্যাস ফাইন্যান্স, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, ব্র্যাক ব্যাংক, জেএমআই সিরিঞ্জ, ইউনাইটেড পাওয়ার জেনারেশন এবং ফিঙ্গার বিডি।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক সিএসসিএক্স ৪৬ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৮৪৭ পয়েন্টে অবস্থান করছে। বাজারটিতে লেনদেন হয়েছে ৪১ কোটি ৫৪ লাখ টাকার শেয়ার। লেনদেন হওয়া ২৭৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের মধ্যে ১৩১টির শেয়ারের দাম বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ১১৯টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম। অপরিবর্তিত রয়েছে ২৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দাম।

এমএএস/এমএমজেড/এমকেএইচ