দরপতনের মধ্যেও বেড়েছে লেনদেন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৭ পিএম, ১৭ জানুয়ারি ২০১৯

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সবকটি মূল্য সূচকের পতন হয়েছে। এ নিয়ে টানা দুই কার্যদিবস দরপতন হলো শেয়ারবাজারে। তবে দরপতন হলেও বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) দুই বাজারেই বেড়েছে লেনদেনের পরিমাণ।

এদিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে এক হাজার ১১ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। আগের কার্যদিবসে লেনদেন হয় এক হাজার কোটি ৫২ লাখ টাকা। সে হিসেবে আগের কার্যদিবসের তুলনায় লেনদেন বেড়েছে ১১ কোটি চার লাখ টাকা।

লেনদেন কিছুটা বাড়লেও বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমেছে। ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ১১৮টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম আগের দিনের তুলনায় বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ১৯৬টির। আর ৩২টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম কমায় ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের তুলনায় ১৩ পয়েন্ট কমে পাঁচ হাজার ৮২৫ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। অপর দুটি মূল্য সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক আগের দিনের তুলনায় ১২ পয়েন্ট কমে এক হাজার ৩০৯ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আর ডিএসই-৩০ আগের দিনের তুলনায় সাত পয়েন্ট কমে দুই হাজার ৯ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

টাকার অঙ্কে এদিন ডিএসইতে সব থেকে বেশি লেনদেন হয়েছে এসএস স্টিলের শেয়ার। কোম্পানিটির ৩৮ কোটি ১৭ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে থাকা খুলনা পাওয়ারের ২৬ কোটি ৬২ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ২১ কোটি ৩৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইউনাইটেড ফাইন্যান্স।

লেনদেনে এরপর রয়েছে- অ্যাকটিভ ফাইন্যান্স, জেএমআই সিরিঞ্জ, সন্ধানী লাইফ ইনস্যুরেন্স, ফার্স্ট ফাইন্যান্স, সোনার বাংলা ইনস্যুরেন্স, ব্র্যাক ব্যাংক এবং অলিম্পিক।

অপরদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের সার্বিক মূল্য সূচক সিএসসিএক্স ২২ পয়েন্ট কমে ১০ হাজার ৭৯০ পয়েন্টে অবস্থান করছে। লেনদেন হয়েছে ৪৯ কোটি ৯২ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৭৭টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৯০টির দাম বেড়েছে। বিপরীতে কমেছে ১৫৮টির। আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ২৯টির।

এমএএস/এএইচ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :