পোল্ট্রি খাতে বিনিয়োগ করে সহজে স্বাবলম্বী হোন : কৃষিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০২ পিএম, ০৭ মার্চ ২০১৯

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, দারিদ্র্য বিমোচন ও পুষ্টির সহজলভ্যতায় পোল্ট্রি ও ডেইরি শিল্পের কোনো বিকল্প নেই। খাত দুটিতে বিনিয়োগ করে সহজে স্বাবলম্বী হওয়া যায়। তাই এ খাতে বিনিয়োগ করে স্বাবলম্বী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) আন্তর্জাতিক পোল্ট্রি শো-২০১৯ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ডিন ড. মো. এ বি এম আব্দুল্লাহ।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘ভবিষ্যৎ উন্নত বাংলাদেশের রাষ্ট্রপরিচালনায় চাই জ্ঞানী, দক্ষ ও যোগ্য নাগরিক। স্বাস্থ্যবান মেধাবী জাতি গড়তে হলে আরও অধিক পরিমাণ মুরগির ডিম ও মাংস খেতে হবে। এ চাহিদা মেটাতে আরও বেশি পরিাণ ডিম ও মাংসের উৎপাদন বাড়াতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘পোলট্রি শিল্পের উন্নয়ন, সম্প্রসারণ, বিনিয়োগ বৃদ্ধি এবং কীভাবে দেশীয় বাজার সম্প্রসারণ করে আন্তর্জাতিক বাজার সৃষ্টি করা যায় তা সবাইকে সমন্বতভাবে কাজ করে কৌশল বের করতে হবে। এ শিল্প দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। সবচেয়ে সম্ভাবনাময় এ খাতের উন্নয়নে সব ধরনের সহায়তা করবে সরকার। এ খাতের অর্জনকে টেকসই করতে হবে। বর্ধিত জনসংখ্যার খাদ্য ও পুষ্টি চাহিদা পূরণে কৃষি এবং অকৃষি উভয় সেক্টরকে কাজ করতে হবে।’

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশে এখন আন্তর্জাতিকমানের অনেক পোল্ট্রি শিল্প গড়ে উঠেছে যা কয়েক বছর আগে কেউ চিন্তাও করতে পারত না। চাকরির প্রতি নির্ভরশীল না হয়ে নারী-পুরুষেরা ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র পুঁজি নিয়ে পোল্ট্রি শিল্পকে সমৃদ্ধ অর্থকরী শিল্পে পরিণত করেছে।’

পোল্ট্রি শিল্পে জড়িত প্রায় ৪০ শতাংশই নারী উল্লেখ করে ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, ‘গ্রামীণ অর্থনীতিতে নারীর ক্ষমতায়নে কৃষির পরই সবচেয়ে বড় অবদান রাখছে পোল্ট্রি শিল্পটি। এ শিল্পকে কেন্দ্র করে পরিচালনা, পরিচর্যা, বাজারজাতকরণ এবং খাদ্য উৎপাদন কার্যক্রমের সুবাদে আরও ক্ষুদ্র ও মাঝারি আকারে ব্যবসা এবং গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত বিস্তৃত পোল্ট্রি খাতটি দেশে ব্যাপক কর্মসংস্থানেরও সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।’

ওয়ার্ল্ড পোল্ট্রি সায়েন্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশের সভাপতি মো. সামসুল আলম আরেফিন খালেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ অধিদফতরের মহাপরিচালক ড. হীরেশ চন্দ্র ভৌমিক, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ রিসার্চ ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. নাথুরাম সরকার।

এমইউএইচ/এসআর/এমকেএইচ

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।