বুক বিল্ডিংয়ে সংশোধনী আনতে কমিটি গঠন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২৫ পিএম, ১৯ মার্চ ২০১৯

বুক বিল্ডিংয়ের অপব্যবহাররোধে পদ্ধতিটিতে সংশোধনী আনতে ৫ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত ৬৮০তম নিয়মিত কমিশন সভায় বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক রুকসানা চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে এই কমিটি গঠন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

এ বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান জানান, রুকসানা চৌধুরীকে আহ্বায়ক করে গঠন করা কমিটি পাবলিক ইস্যু রুলস ২০১৫ এর বুক বিল্ডিং পদ্ধতি পর্যালোচনা করে প্রয়োজনীয় সংশোধনীর সুপারিশ করবে।

এদিকে বুক বিল্ডিংয়ে সঠিক দর নির্ধারণে করণীয় নিয়ে সম্প্রতি বিএসইসি, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই), চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) ও বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) মধ্যে এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে বিএমবিএর পক্ষ থেকে বুক বিল্ডিংয়ে দর নির্ধারণে ৫টি পদ্ধতির বিষয়ে কমিশনকে অবহিত করা হয়। এর মধ্যে রয়েছে- টাইমিং অব আইপিও রোড শো, রিফ্রেশমেন্টস, গিফটস ইন দ্য আইপিও রোড শো অ্যান্ড লটারি, অ্যালাওয়িং রিলেটেড পারটিজ টু সাবস্ক্রাইব ইন এন আইপিও, অফার পিরিয়ড ফর আনসাকসেসফুল ইলিজিবল ইনভেস্টর এবং ইন্ট্রডিউসিং হার্ড ফ্লোর মেথড।

তবে কমিশন ডাচ নিলাম পদ্ধতিটির বিষয় তুলে ধরে। এই পদ্ধতিতে কাট-অফ প্রাইসের ওপরে দর প্রস্তাবকারীদের প্রস্তাবিত দরেই শেয়ার ক্রয় করতে হবে। আর কাট-অফ প্রাইসের নিচে দর প্রস্তাবকারীরা শেয়ার পাবেন না।

এর আগে গত বছরের জানুয়ারিতে বুক বিল্ডিং পদ্ধতিতে যোগ্য বিনিয়াগকারীদের বিডিংয়ে অংশগ্রহণ প্রক্রিয়ার কিছু বিষয়ে সংশোধনী আনার সিদ্ধান্ত নেয় বিএসইসি। ওই সংশোধনীর বিষয়ে সে সময় সাইফুর রহমান জানান, বুক বিল্ডিং পদ্ধতির বিডিংয়ে অংশ নিতে যোগ্য বিনিয়োগকারীদের কমপক্ষে দুই সদস্য বিশিষ্ট সুপারিশ কমিটি গঠন করতে হবে। এ কমিটির সুপারিশের ভিত্তিতে নিলাম করবে প্রতিষ্ঠানটি।

কমিটি বুক বিল্ডিংয়ে আসা কোম্পানির রেড হেয়ারিং প্রসপেক্টাস বিস্তারিত পর্যালোচনা করবে। কোম্পানির আর্থিক বিবরণী, পণ্য, ব্যবসা, ম্যানেজমেন্টসহ সার্বিক বিষয় পর্যালোচনা করে সুপারিশ প্রস্তুত করবে। সেই সুপারিশের ভিত্তিতে যোগ্য বিনিয়োগকারী বিডিংয়ে অংশ নেবে।

বিডিং শেষ হওয়ার দুই কার্যদিবসের মধ্যে স্টক এক্সচেঞ্জে প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। আর বিডিং শেষ হওয়ার সাত কার্যদিবসের মধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ বিডিংয়ের প্রতিবেদন বিএসইসির কাছে জমা দেবে।

এমএএস/এমএসএইচ/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :