ব্লকে অংশ নিল ৩১ কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৩৪ পিএম, ২৪ আগস্ট ২০১৯

গত সপ্তাহের পাঁচ কার্যদিবসে ৩১টি প্রতিষ্ঠান ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্লক মার্কেটের লেনদেনে অংশ নেয়। এ প্রতিষ্ঠানগুলোর ৭৭ লাখ ৪১ হাজার ৪৮০টি শেয়ার ৩১ কোটি ১৪ লাখ ৭৩ হাজার টাকায় লেনদেন হয়েছে।

ব্লকে লেনদেন হওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে- ব্র্যাক ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল, গ্রামীণফোন, ইসলামী ব্যাংক, পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইন, সিলকো ফার্মা, ফুওয়াং ফুড, তাকাফুল ইসলামী ইন্স্যুরেন্স, এসকে ট্রিমস, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, ন্যাশনাল পলিমার, নাভানা সিএনজি, ম্যারিকো, যমুনা ব্যাংক, রেনউইক যজ্ঞেশ্বর, ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকো, সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স, ওরিয়ন ইনফিউশন, এশিয়া ইন্স্যুরেন্স, আইডিএলসি, পেনিনসুলা, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, আলহাজ্ব টেক্সটাইল, সিনো বাংলা, কপারটেক, ফরচুন সুজ, মুন্নু জুট স্টাফলার্স এবং বিবিএস কেবলস।

প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে গত সপ্তাহে ব্লকে সবচেয়ে বেশি টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে ব্র্যাক ব্যাংকের। কোম্পানিটির ৭ কোটি ৭০ লাখ ৬৯ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা প্রাইম ব্যাংকের ৪ কোটি ৭৬ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৪ কোটি ১৮ লাখ ৩ হাজার টাকার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে রয়েছে প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল।

এ ছাড়া গ্রামীণফোনের ২ কোটি ২০ লাখ ৪৯ হাজার টাকা, ইসলামী ব্যাংকের ২ কোটি ১২ লাখ ৯৬ হাজার, পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্সের ২ কোটি ৩ লাখ ৪০ হাজার, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্সের ১ কোটি ৩৮ লাখ ৪৩ হাজার, গ্ল্যাক্সোস্মিথক্লাইনের ১ কোটি ২০ লাখ ৫২ হাজার এবং সিলকো ফার্মার ১ কোটি ১৯ লাখ ৯ হাজার টাকার লেনদেন হয়।

বাকি কোম্পানিগুলোর এককভাবে এক কোটি টাকার কম লেনদেন হয়। এর মধ্যে- ফুওয়াং ফুডের ৬৯ লাখ ৫৫ হাজার টাকা, তাকাফুল ইসলামী ইন্স্যুরেন্সের ৬১ লাখ টাকা, এসকে ট্রিমসের ৪৪ লাখ ১৩ হাজার টাকা, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিকের ৩৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা, ন্যাশনাল পলিমারের ৩৫ লাখ ৫৩ হাজার টাকা, নাভানা সিএনজির ২৩ লাখ ৩২ হাজার টাকা, ম্যারিকোর ২২ লাখ ৬৩ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

এককভাবে ব্লক মার্কেটে ২০ লাখ টাকার কম লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে- যমুনা ব্যাংকে ১৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা, রেনউইক যজ্ঞেশ্বরের ১৫ লাখ, ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকোর ১৪ লাখ ১৮ হাজার, সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্সের ১২ লাখ ৯৩ হাজার, ওরিয়ন ইনফিউশনের ১২ লাখ ৩০ হাজার, এশিয়া ইন্স্যুরেন্সের ১০ লাখ ১৬ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

বাকি প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে- আইডিএলসির ৮ লাখ ২৫ হাজার টাকা, পেনিনসুলার ৭ লাখ ৭১ হাজার, সিটি জেনারেল ইন্স্যুরেন্সের ৭ লাখ ৪৮ হাজার, আলহাজ্ব টেক্সটাইলের ৭ লাখ ১৫ হাজার, সিনো বাংলার ৬ লাখ ৬৬ হাজার, কপারটেকের ৫ লাখ ৭৯ হাজার, ফরচুন সুজের ৫ লাখ ২৯ হাজার, মুন্নু জুট স্টাফলার্সের ৫ লাখ ২ হাজার, বিবিএস কেবলসের ৫ লাখ ২ হাজার টাকার লেনদেন হয়েছে।

এমএএস/জেডএ/জেআইএম