৪২৮ কোটি টাকা ব্যয়ে চার ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৫৪ পিএম, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির প্রস্তাবসহ চারটি ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এতে মোট ব্যয় হবে ৪২৮ কোটি ১৫ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সভাকক্ষে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ কথা জানান।

অর্থমন্ত্রী বলেন, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির (পিইডিপি-৪) আওতায় ‘আউট অব স্কুল চিলড্রেন’ কর্মসূচির মাধ্যমে এক লাখ শিশুর শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখার লক্ষ্যে সেবা ক্রয়ে বাস্তবায়নকারী বেসরকারি সংস্থা (আইএসএ) নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১৪৯ কোটি ৩৩ লাখ ৫২ হাজার টাকা। সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান জাগরণী চক্র ফাউন্ডেশন, ব্র্যাক, আরডিআরএস, এফআইভিডিবির অনুকূলে এই ৪ প্রতিষ্ঠানকে অনুমোদন দেয়া হয়। প্রস্তাবটি বাস্তবায়ন করবে শিক্ষা ব্যুরো।

মুস্তফা কামাল বলেন, চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচির (পিইডিপি-৪) সাব-কম্পোনেন্ট ২.৫ ‘আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন’ কর্মসূচির জন্য সেবা ক্রয়ের জন্য অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এবং উপযুক্ত সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১৪৮ কোটি ২৩ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। এই প্রকল্পে সাব কম্পোনেন্ট ২.৫ আউট অব স্কুল চিলড্রেন এডুকেশন কর্মসূচির সার্বিক সহায়তা প্রদানসহ মাঠ পর্যায়ে জনবল নিয়োগ, প্রশিক্ষণ, গাইডলাইন, কারিকুলাম, মডিউল ম্যানুয়াল তৈরির জন্য একটি অভিজ্ঞতাসম্পন্ন উপযুক্ত সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান নিয়োগের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হলে ৩১টি প্রস্তাব জমা পড়ে। পিইসি কর্তৃক যাচাই-বাছাইকৃত চারটি রেসপনসিভ সংস্থার মধ্য থেকে দুটি প্রতিষ্ঠানকে সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়।

Kamal-2

সভায় অনুমোদিত অন্যান্য প্রকল্পগুলো হলো- সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের আওতায় কুয়েত ফান্ডের সহায়তায় পায়রা সেতু (লেবুখালী সেতু) নির্মাণ প্রকল্পের পায়রা সেতুর নকশা প্রণয়ন ও নির্মাণ তদারকি কাজের পরামর্শক সেবার ব্যয় বৃদ্ধির প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। সেতুর নকশা পরিবর্তনজনিত কারণে ইতোমধ্যে পূর্ত কাজে নিয়জিত ঠিকাদারের সমাপ্তির সময় ১৪ মাস ১১ দিন বৃদ্ধি করা হয়েছে। সে ধারাবাহিকতায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান প্রকল্পের অধীন নির্মাণ কাজের তদারকির জন্য মেয়াদ ১৪ মাস ১১ দিন বৃদ্ধি করে মোট ৮৯.৩৬ মাসের চুক্তিমূল্য ভেরিয়েশন অতিরিক্ত ১২ হাজার ৬৩ লাখ ১৬৬২০ টাকা এবং সম্পাদিত চুক্তিমূল্য ২৫ কোটি ৯৭ লাখ ২৯ হাজার ৭৫০ টাকাসহ মোট ৩৮ কোটি ৬০ লাখ ৪৬ হাজার ৩৭০ টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।

প্রকল্পের পরামর্শক সেবায় নিয়োজিত প্রতিষ্ঠানগুলো হলো- ইন্টারন্যাশনাল কনসালটেন্টস অ্যান্ড ট্যাকনোক্রেটস প্রাইভেট লিমিটেড অ্যান্ড কুনহুয়া ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনসালটিং কোম্পানি লিমিটেড, ডা. নাবিল আবদুল রহিম কনসালটেন্টস, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড প্লানিং কনসালটেন্টস লিমিটেড জয়েন্ট ভেনচার।

এছাড়া কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁদপুর, নোয়াখালী, ফেনী ও লক্ষ্মীপুর জেলার বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার সার্বিক উন্নয়ন ও সম্প্রসারণের লক্ষ্যে একটি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প, কুমিল্লা জোন’ শীর্ষক প্রকল্পের প্যাকেজ নং জিডি-১ লট-১ এর আওতায় টার্ণকি- ভিত্তিতে ৫টি নতুন সাবস্টেশন স্থাপন, ৪টি সাবস্টেশনের মানোন্নয়ন ও ১টি সুইজার্ড অ্যান্ড বে সম্প্রসারণ কাজের ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন। কাজটি পেয়েছে চায়না এনার্জি ইঞ্জিনিয়ারিং গ্রুপ জিয়ানসু নং ৩ ইলেকট্রিক পাওয়ার কনসালটেশন কোম্পানি লিমিটেড। এতে মোট ব্যয় হবে ৯১ কোটি ৯৮ লাখ ৪২২৬ টাকা।

এর আগে অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে একটি প্রস্তাবের নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। প্রস্তাবটি হচ্ছে- শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ ইস্পাত ও প্রকৌশল কর্পোরেশন কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন ‘রাসায়নিক গুদাম নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পটি সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে ক্রয়ের জন্য নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে অর্থনৈতিক বিষয়ক সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

এ প্রকল্পের আওতায় পুরান ঢাকার ঝুঁকিপূর্ণভাবে সংরক্ষিত রাসায়নিক পদার্থসমূহ জনগণের নিরাপত্তা স্বার্থে অস্থায়ী ভিত্তিতে দ্রুত অন্যত্র স্থানান্তর ও নিরাপদ সংরক্ষণের জন্য গাজীপুর জেলার টঙ্গী শিল্প এলাকার কাঁঠালদিয়া মৌজায় ৬ একর জমিতে অস্থায়ী গুদাম নির্মাণের জন্য এই প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন দেয়া হয়। প্রকল্পের আওতায় জরুরি ভিত্তিতে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ৫৩টি কেমিক্যাল গোডাউন ও ৩টি ভবন নির্মাণ করা হবে।

এমইউএইচ/এমএসএইচ/পিআর