আইন লঙ্ঘন, তিন ব্রোকারকে সতর্ক করবে বিএসইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২১ পিএম, ১০ অক্টোবর ২০১৯

আইন লঙ্ঘন করায় তিন সিকিউরিটিজ হাউজ বা ব্রোকারেজ হাউজকে সতর্ক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

প্রতিষ্ঠান তিনটি হলো- ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজেস অ্যান্ড কোম্পানি লিমিটেড, মো. ফখরুল ইসলাম সিকিউরিটিজ লিমিটেড এবং ইসি সিকিউরিটিজ লিমিটেড।

বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে বৃহস্পতিবার ৬৯৯তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

সভা শেষে নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান জানান, মো. ফখরুল ইসলাম সিকিউরিটিজের বিরুদ্ধে এস কে মো. তারেক আমান একটি অভিযোগ দেন। তার অভিযোগ অনুযায়ী, মো. ফখরুল ইসলাম সিকিউরিটিজ লিমিটেড ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা গ্রহণ করে, কিন্তু ওই অর্থ তার লেজার অ্যাকাউন্টে জমা করেনি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের তদন্তে বিষয়টি প্রমাণিত হয়েছে।

এর মাধ্যমে ফখরুল ইসলাম সিকিউরিটিজ লিমিটেড সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (স্টক ডিলার, স্টক ব্রোকার ও অনুমোদিত প্রতিনিধি) বিধিমালা, ২০০০ এর বিধি ১১-এ উল্লেখ করা দ্বিতীয় তফসিলের আচরণবিধি ১ এবং সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ১৯৮৭ এর রুল ৮এ(২) ভঙ্গ করে।

সেই সঙ্গে মো. ফখরুল ইসলাম সিকিউরিটিজ লিমিটেড তাদের কোম্পানির গ্রাহকদের সিকিউরিটিজ সংক্রান্ত রেকর্ড সঠিকভাবে পরিচালিত না করায় সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ এর সেকশন ২১(২) এবং সিকিউরিটিজ ও এক্সচেঞ্জ কমিশন (স্টক ডিলার, স্টক ব্রোকার ও অনুমোদিত প্রতিনিধি) বিধিমালা, ২০০০ এর আওতায় প্রদত্ত নিবন্ধন সনদের ৪নং শর্ত অনুযায়ী কমিশন কর্তৃক নিয়োজিত পরিদর্শন টিমকে চাহিদাকৃত দলিলাদি ও তথ্য সরবরাহ না করায় ওই শর্ত ভঙ্গ করেছিলেন।

অপর দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ইউনাইটেড এন্টারপ্রাইজেস অ্যান্ড কোম্পানি ২০১৭ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত বছরের নিরীক্ষিত আর্থিক হিসাব বিবরণী বছর শেষ হওয়ার ৪ মাসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট স্টক এক্সচেঞ্জের মাধ্যমে কমিশনের কাছে দাখিল করতে ব্যর্থ হয়। এতে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (স্টক ডিলার, স্টক ব্রোকার ও অনুমোদিত প্রতিনিধি) বিধিমালা, ২০০০ এর বিধি ১৩(৪) লঙ্ঘন হয়েছে।

আর ইসি সিকিউরিটিজ লিমিটেড কমিশনের পূর্বানুমতি না নিয়ে সিইও/ম্যানেজিং ডিরেক্টর নিয়োগ/পুনঃনিয়োগ দিয়ে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (মার্চেন্ট ব্যাংকার ও পোর্টফোলিও ম্যানেজার) বিধিমালা, ১৯৯৬ এর বিধি ৩৭(১), ৩৭(২), ৩৭(৩) ভঙ্গ করেছে।

সইফুর রহমান জানান, এনফোর্সমেন্ট কার্যক্রম গ্রহণের সময় ওই সিকিউরিটিজ আইন পরিপালন করায় ইতোমধ্যে লঙ্ঘনগুলো দূরীভূত হয়েছে। তবে ভবিষ্যতে একইরূপ লঙ্ঘন হতে বিরত থাকার ব্যাপারে প্রতিষ্ঠান তিনটিকে সতর্ক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

এমএএস/জেডএ/এমকেএইচ