বীমাকে হটিয়ে শীর্ষে প্রকৌশল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:০৩ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৯

দরপতনের ধারা অব্যাহত রয়েছে পুঁজিবাজারে। লেনদেনও খরা। এমন পরিস্থিতিতে লেনদেনের দিক থেকে কিছুটা হলেও দাপট দেখিয়েছে প্রকৌশল খাত। গত সপ্তাহে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) খাত ভিত্তিক লেনদেনে শীর্ষ স্থান দখল করেছে এ খাতটি। এর মাধ্যমে তিন সপ্তাহ পর শীর্ষ স্থান হারালো বীমা খাত।

লেনদেনে প্রকৌশল খাত কিছুটা দাপট দেখানোর কারণে ডিএসইতে গড় লেনদেন তিনশ কোটি টাকার ওপরে রয়েছে। তবে সপ্তাহের ব্যবধানে কমেছে লেনদেনের পরিমাণ। ডিএসইতে প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে সাড়ে ১৮ শতাংশ। সেই সঙ্গে বড় পতন হয়েছে মূল্য সূচকের। ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক কমেছে দুই শতাংশের ওপরে। সূচকের পাশাপাশি বাজারটিতে মোটা অঙ্কে বাজার মূলধন কমেছে।

গত সপ্তাহজুড়ে ডিএসইতে প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৩১৯ কোটি ২১ লাখ টাকা। আগের সপ্তাহে প্রতিদিন গড়ে লেনদেন হয় ৩৯১ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। অর্থাৎ প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন কমেছে ৭২ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বা ১৮ দশমিক ৫২ শতাংশ।

গত সপ্তাহে শীর্ষে থাকা প্রকৌশল খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ার লেনদেন হয়েছে ২৬৯ কোটি ৩১ লাখ ২০ হাজার টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৬৭ কোটি ৩২ লাখ ৮০ হাজার টাকা, যা ডিএসইর লেনদেনের ২১ শতাংশ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা ওষুধ ও রসায়ন খাতের কোম্পানিগুলোর শেয়ার সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে ১৮৮ কোটি ৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা, যা ডিএসইর মোট লেনদেনের ১৫ শতাংশ। ১০২ কোটি ৭৮ লাখ টাকার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিদ্যুৎ খাত। মোট লেনদেনে এ খাতের অবদান ৮ শতাংশ।

চতু্র্থ স্থানে থাকা মিউচ্যুয়াল ফান্ড খাতের লেনদেন হয়েছে ১০০ কোটি ৮৪ লাখ ৪০ হাজার টাকা, যা ডিএসইর মোট লেনদেনের ৮ শতাংশের সমান। আর শীর্ষ স্থান হারানো বীমা খাত নেমে এসেছে পঞ্চম স্থানে। এ খাতের কোম্পানিগুলোর ১০০ কোটি ৫৫ লাখ ৬০ হাজার টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

এছাড়া বস্ত্র খাতের ৯৮ কোটি ১০ লাখ, বিবিধ খাতের ৬৭ কোটি ৯৯ লাখ, সিরামিকের ৬১ কোটি ৪২ লাখ, ব্যাংকের ৬৭ কোটি ১ লাখ, খাদ্যের ৩৫ কোটি ৪৪ লাখ, টেলিযোগাযোগের ৩৪ কোটি ৯১ লাখ, চামড়ার ২৭ কোটি ২৬ লাখ, তথ্য প্রযুক্তির ২৪ কোটি ৪৪ লাখ, আর্থিকের ২১ কোটি ১৫ লাখ, ভ্রমণের ৫ কোটি ৭৮ লাখ, সিমেন্টের ৫ কোটি ৪৮ লাখ, কাগজের ৪ কোটি ২ লাখ এবং সেবা খাতের ৩ কোটি ১৮ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে।

এমএএস/জেএইচ/জেআইএম