লভ্যাংশ দেবে ৯ কোম্পানি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৪৯ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

গত সপ্তাহে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত নয়টি কোম্পানি লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে। এর মধ্যে তিনটি কোম্পানি লভ্যাংশ হিসাবে শেয়ারহোল্ডারদের নগদ টাকার পাশাপাশি শেয়ার দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। চারটি কোম্পানি শুধু নগদ টাকা এবং দুটি শুধু বোনাস শেয়ার দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কোম্পানিগুলোর পরিচালনা পর্ষদ ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাব বছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে লভ্যাংশ দেয়ার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

লভ্যাংশ ঘোষণার পাশাপাশি কোম্পানিগুলো তা শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের জন্য বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) তারিখ নির্ধারণ করেছে। একই সঙ্গে লভ্যাংশপ্রাপ্ত যোগ্য বিনিয়োগকারী নির্ধারণে রেকর্ড ডেটও ধরা হয়েছে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে- সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস, ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং, জেনেক্স ইনফোসিস, নর্দার্ন জুট ম্যানুফ্যাকচারিং, ডেসকো, বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন, এনভয় টেক্সটাইল, নূরানী ডাইং ও ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড।

সিলভা ফার্মাসিউটিক্যালস

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ৬ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম নির্ধারণ করা হয়েছে ২৫ নভেম্বর। আর রেকর্ড ডেট ধরা হয়েছে ৬ নভেম্বর। সমাপ্ত হিসাব বছরে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হয়েছে ১ টাকা ১৫ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৪১ পয়সা।

ফারইস্ট নিটিং অ্যান্ড ডাইং

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ৫ শতাংশ নগদ এবং ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৪ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৯৭ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ২০ টাকা ৪৮ পয়সা।

জেনেক্স ইনফোসিস

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ৫ শতাংশ নগদ এবং ১৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ২৪ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ৭ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৭১ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১৬ টাকা ৭০ পয়সা।

নর্দার্ন জুট ম্যানুফ্যাকচারিং

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১০০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এমজিএম ৫ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ৫ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২৩ টাকা ২৯ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৮০ টাকা ৩৩ পয়সা।

ডেসকো

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ৪ জানুয়ারি এবং রেকর্ড ডেট ২১ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৭৭ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৪৬ টাকা ৩০ পয়সা।

বাংলাদেশ শিপিং কর্পোরেশন

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ২৪ নভেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ৬ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৬২ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৫৬ টাকা ৯৫ পয়সা।

এনভয় টেক্সটাইল

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১৫ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ২১ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ১৪ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ৩ টাকা ৩১ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৩৮ টাকা ৩৫ পয়সা।

নূরানী ডাইং

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ১৯ ডিসেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ৬ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ১৮ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ১২ টাকা ৮০ পয়সা।

ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের ১৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এজন্য এজিএম ২৩ নভেম্বর এবং রেকর্ড ডেট ৩ নভেম্বর নির্ধারণ করা হয়েছে। সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটির ইপিএস হয়েছে ২ টাকা ৭৫ পয়সা এবং এনএভিপিএস দাঁড়িয়েছে ৩০ টাকা ১৬ পয়সা।

এমএএস/এমএআর/জেআইএম