কমে গেল স্কয়ার টেক্সটাইলের লভ্যাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:১৩ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৯

শেষ চার বছরের মধ্যে এবার সব থেকে কম লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বস্ত্র খাতের কোম্পানি স্কয়ার টেক্সটাইল।

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ এবার শেয়ারহোল্ডারদের ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ শেয়ারহোল্ডাররা লভ্যাংশ হিসাবে প্রতিটি শেয়ারের বিপরীতে নগদ ২ টাকা করে পাবেন।

মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সভায় ২০১৯ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত বছরের আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এ লভ্যাংশ দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

২০০২ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার পর নিয়তিমই শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ হিসাবে বোনাস শেয়ার দিয়েছে কোম্পানিটি। তবে অতীতের রীতি ভেঙে এবার শুধুই নগদ লভ্যাংশ দেবে স্কয়ার টেক্সটাইল।

এর আগের ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠানটি থেকে বিনিয়োগকারীরা ২০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশের পাশাপাশি ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ারও পেয়েছিল। তার আগের বছর ২০১৭ সালেও ২০ শতাংশ নগদ ও ৫ শতাংশ বোনাস শেয়ার লভ্যাংশ দিয়েছিল প্রতিষ্ঠানটি। আর ২০১৬ সালে ২৫ শতাংশ নগদ ও ১০ শতাংশ বোনাস শেয়ার দিয়েছিল স্কয়ার টেক্সটাইল।

লভ্যাংশের পরিমাণ কমলেও এবার মুনাফার প্রায় সম্পূর্ণ অংশ শেয়ারহোল্ডারদের মধ্যে বিলিয়ে দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। প্রতিটি শেয়ারে ২ টাকা ১৮ পয়সা হারে কোম্পানিটির মুনাফা হয়েছে ৪৩ কোটি টাকা। এর মধ্য থেকে ৩৯ কোটি ৪৫ লাখ টাকাই লভ্যাংশ হিসাবে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। অর্থাৎ মুনাফার ৯২ শতাংশ লভ্যাংশ হিসেবে দেয়া হচ্ছে।

প্রতিষ্ঠানটির মোট শেয়ারের ৬১ দশমিক ৮৩ শতাংশই রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ১৩ দশমিক ৬১ শতাংশ শেয়ার। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ২১ দশমিক ২৩ শতাংশ এবং বিদেশিদের কাছে ৩ দশমিক ৩৩ শতাংশ শেয়ার আছে। এ হিসাবে মুনাফার প্রায় দুই তৃতীয়াংশ নিয়ে যাবেন উদ্যোক্তা ও পরিচালকরা।

লভ্যাংশের বিষয়ে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের নেয়া সিদ্ধান্ত শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের জন্য বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে ১২ ডিসেম্বর। আর রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ১৯ নভেম্বর।

লভ্যাংশ ঘোষণার কারণে আগামীকাল বুধবার কোম্পানিটির শেয়ার দামের কোন সার্কিট ব্রেকার থাকবে না। অর্থাৎ কোম্পানিটির শেয়ার দাম যত খুশি বাড়তে অথবা কমতে পারবে।

এমএএস/জেএইচ/এমএস