জীবন বীমা কর্পোরেশনে দক্ষ লোক শূন্যতার শঙ্কা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২০ পিএম, ১১ নভেম্বর ২০১৯

>> কর্পোরেশনের অর্থে জুনিয়ার অফিসারদের উচ্চশিক্ষার সিদ্ধান্ত
>> ৬ মাসের মধ্যে প্রযুক্তি ব্যবহারে প্রশিক্ষিত কারার উদ্যোগ
>> সুযোগ পাচ্ছেন ২০১৮ সালে নিয়োগপ্রাপ্তরা

নিয়মিত জনবল নিয়োগ দিতে না পারায় দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রায় একই সময়ে অবসরে গিয়েছেন এবং ভবিষ্যতেও যাবেন। এতে করে দক্ষ লোকের শূন্যতা সৃষ্টির আশঙ্কা করছে রাষ্ট্রায়ত্ত জীবন বীমা কোম্পানি, ‘জীবন বীমা কর্পোরেশন’। তাই কর্পোরেশনের টাকায় জুনিয়র অফিসারদের বীমা বিষয়ে উচ্চশিক্ষা দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংস্থাটি।

অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ বিষয়ে জীবন বীমা কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান ড. শেলীনা আফরোজা স্বাক্ষরিত একটি চিঠি আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

এতে বলা হয়, ‘সম্প্রতি জীবন বীমা কর্পোরেশনের বোর্ড সভা হয়। সভায় বিস্তারিত আলোচনার পর এসব সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

‘বোর্ড সভায় আলোচিত হয় যে, যে কোনো জীবন বীমা প্রতিষ্ঠান সচারুরুপে পরিচালনার জন্য দক্ষ ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন লোকের খুবই প্রয়োজন। জীবন বীমা কর্পোরেশনে নিয়মিত বিরতিতে লোক নিয়োগ দেয়া সম্ভব না হওয়ায় দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রায় একই সময়ে অবসরে গিয়েছেন এবং ভবিষ্যতেও যাবেন। এতে কর্পোরেশনে দক্ষ লোকের শূন্যতার সৃষ্টি হবে।’

চিঠিতে আরও বলা হয়, ‘প্রবাসী কর্মীদের জন্য বীমা, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য স্বাস্থ্য বীমা স্কিমসহ বড় বড় স্কিম চালু করতে যাচ্ছে কর্পোরেশন। এ অবস্থায় এসব কর্মকাণ্ড সুচারুভাবে চালু রাখা এবং নতুন নতুন বড় স্কিম গ্রহণের জন্য বীমা বিষয়ে জ্ঞানসম্পন্ন এবং প্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষ জনবল প্রয়োজন। নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত জুনিয়র অফিসারদের এখনই বীমা এবং প্রযুক্তি বিষয়ে প্রশিক্ষিত করে তোলা হলে ভবিষ্যতে এসব কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাওয়া সহজ হবে।’

এসব বিষয়ে আলোচনার পর বোর্ড সিদ্ধান্ত নেয় যে, জীবন বীমা কর্পোরেশনে ২০১৮ সালে নিয়োগপ্রাপ্ত জুনিয়র অফিসাররা বীমা বিষয়ে উচ্চশিক্ষা গ্রহণ এবং অ্যাকচ্যুয়ারি বিষয়ে পড়াশোনা করলে কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে আর্থিক সহায়তা দেয়া হবে।

এ ছাড়া ২০১৮ সালে নিয়োগপ্রাপ্ত জুনিয়র অফিসারদের আগামী ৬ মাসের মধ্যে কম্পিউটারসহ প্রযুক্তি ব্যবহারে প্রশিক্ষিত করতে হবে। অথবা তাদের স্ব-উদ্যোগে প্রযুক্তি জ্ঞান আহরণের জন্য উৎসাহী করতে বোর্ড ব্যবস্থাপনা পরিচালকে পরামর্শ দেয়া হয়।

সভায় আরও সিদ্ধান্ত হয় যে, এসব সিদ্ধান্ত বোর্ডের পরবর্তী সভায় নিশ্চিতকরণের আগেই কার্যকর করা যাবে।

এমইউএইচ/জেডএ/পিআর