লোকসান থেকে বেরোতে ৩ বছর লাগবে স্বপ্ন’র

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:৫৭ পিএম, ১১ নভেম্বর ২০১৯

রিটেইল চেইন সুপার শপ ১৫ বছরের আগে মুনাফা করতে পারে না এমন মন্তব্য করে এসিআই লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ দৌলা বলেছেন, এসিআই’র সহযোগী প্রতিষ্ঠান এসিআই লজিস্টিক লিমিটেড (স্বপ্ন) ৩-৪ বছর পর লোকসানে থাকবে না।

সোমবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে অবস্থিত এসিআই’র কার্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) আর্থিক অবস্থা নিয়ে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এতে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ দৌলা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রধান অর্থ কর্মকর্তা (সিএফও) প্রদীপ কর, ইন্টারনাল অডিট ও রিস্ক ম্যানেজমেন্ট প্রধান অমিতাভ সাহা প্রমুখ।

প্রশ্নের উত্তরে আরিফ দৌলা জানান, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে এসিআই লিমিটেড সমন্বিতভাবে ২৯ কোটি টাকা লোকসান করেছে। তবে এককভাবে এসিআই মুনাফায় আছে। সহযোগী প্রতিষ্ঠানের অংশ বাদ দিলে এসিআই ২৫ কোটি টাকা মুনাফায় আছে।

নিয়মিত বড় ধরনের মুনাফা করা এসিআই লিমিটেড চলতি বছরের জানুয়ারিতে ২০১৮ সালের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর সময়ের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে। এতে কোম্পানিটি ৫ কোটি ৪৪ লাখ টাকা লোকসান দেখায়।

প্রতিষ্ঠানটির এ লোকসান নিয়ে সমালোচনা করে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। বিষয়টি নিয়ে ডিএসইর একাধিক বোর্ড সভায় আলোচনা হয়। সেই সঙ্গে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) কাছে এসিআই লিমিটেডের আর্থিক তথ্য বিশেষ নিরীক্ষার দাবি জানায় ডিএসই।

ডিএসইর পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, এসিআই গত ১০ বছর ধরে তার রিজার্ভ থেকে লোকসানের বিপরীতে ভর্তুকি দিচ্ছে। ৩৬ কোটি টাকা মূলধনের কোম্পানিটি সহযোগী প্রতিষ্ঠানের লোকসানের নামে প্রায় ৯০০ কোটি টাকা লোকসান দিয়েছে।

এসব বিষয় তুলে ধরে অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে প্রশ্ন করা হয়- এসিআই যে লোকসান করছে তার পিছনে চেইন সুপার শপ স্বপনের লোকসান একটি অন্যতম কারণ। ডিএসই থেকে স্বপ্নের লোকসান বহন করা নিয়ে আপত্তি তোলা হয়েছে। এরপরও এসিআই’র পক্ষ থেকে কেন একটি লোকসানি প্রতিষ্ঠান দীর্ঘদিন ধরে চালিয়ে যাওয়া হচ্ছে?

এর উত্তরে আরিফ দৌলা বলেন, একটি কোম্পানি অনেকগুলো ইনিশিয়েটিভ (পদক্ষেপ) নেই। প্রতিটি পদক্ষেপর আলাদা প্রসেস (প্রক্রিয়া) আছে। সারা বিশ্বের কেন রিটেই চেন ১৫ বছরের আগে প্রফিট (লাভ) করেনি। কিন্তু যখন তারা প্রফিট করা শুরু করে, হিউজ প্রফিট করে।

তিনি বলেন, ওয়ালমার্ট বিশ্বের সব থেকে বড় কোম্পানি। এই কোম্পানিটি প্রফিটে আসতে ৩৫ বছর লেগেছে। শ্রীলঙ্কার বড় বড় রিটেইল চেইনগুলো এখন ভালো মুনাফা করছে। এই অবস্থায় তাদের আসতে ২৫ বছর লেগেছে।

বর্তমানে স্বপ্নের ১২০টি সুপার শপ আছে, এটাকে এক হাজারে নিয়ে যেতে হবে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, বাংলাদেশে একটি বড় বিল্ডিং করতেই এক হাজার কোটি টাকা লাগে। বাংলাদেশের একটি টপ ব্যান্ড রিটেই্ল চেইন করতে এক হাজার কোটি লাগবে না? অর্গানাইজেশনের লজিকটা বুঝতে হবে। লজিকটা বুঝতে না পারলে আমরা একটা গরিব দেশ থাকবো।

এ সময় এসিআই’র চেয়ারম্যান এম আনিস উদ দৌলা বলেন, আমাদের লোকসানটাকে বিনিয়োগ হিসেবে ধরতে হবে। অন্যদেশের মতো ১০-১২ বছর পরে যখন প্রফিটে আসবে, তখন হিউজ প্রফিট দেবে। আমাদের এসিআই’র জন্য মনেকরি এটি একটি সফল উদ্যোগ। আপনার শিগগির দেখতে পাবেন। এটি ব্রেক ইভেট পয়েন্টের কাছাকাছি চলে এসেছে। এটা এখনো ন্যাশনালি যায়নি। আমরা যখন সেই এক্সপ্যানশন করবো, তখন আপনারা দেখবেন এর ইমপ্যাক্টটা কতো।

লোকসান থেকে বিরিয়ে আসতে স্বপ্নের আরও কত সময় লাগতে পারে? সাংবাদিকদের এমন এক প্রশ্নের উত্তরে আরিফ দৌলা বলেন, আরও ৩-৪ বছর লাগবে। তবে এটা নির্ভর করছে আমরা কি বিনিয়োগ করছি তার ওপর। কিন্তু আমি মনেকরি ৩-৪ বছর যথেষ্ট সময়। বাংলাদেশের অনেকগুলো শহর আছে, যেগুলোতে স্বপ্ন নেই। ওগুলোতে আমাদের যেতে হবে।

২০১৮-১৯ হিসাব বছরে এসিআই’র লোকসান করার মূল কারণ কি? সাংবাদিকদের পক্ষ থেকে এমন প্রশ্ন করা হলে আরিফ দৌলা বলেন, মূল কারণ ইন্টারেস্ট রেট (সুদ হার)।

এমএএস/এমআরএম