এসিআই’র ভুল আর্থিক তথ্য প্রকাশ, ডিএসইর কর্মকর্তা বরখাস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৩৩ পিএম, ১২ নভেম্বর ২০১৯

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত অ্যাডভান্সড কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের (এসিআই) আর্থিক অবস্থার ভুল তথ্য প্রকাশ করায় ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) এক কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন জাগো নিউজকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আজ ডিএসইর ওয়েবসাইটে এসিআই’র চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকের (জুলাই-সেপ্টেম্বর) ভুল আর্থিক হিসাব প্রকাশ করা হয়। এটা বড় ধরনের ভুল। এ কারণে সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রধানকে বরখাস্ত করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ভুলটি ইচ্ছাকৃতভাবে করা হয়েছে কি না, তা ম্যানেজমেন্ট ক্ষতিয়ে দেখছে।

ডিএসই সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার লেনদেন শুরুর আগে এসিআইয়ের প্রথম প্রান্তিকে সাবসিডিয়ারি কোম্পানিসহ শেয়ারপ্রতি মুনাফা (ইপিএস) হিসাবে ৫ টাকা ১৯ পয়সার তথ্য প্রকাশ করে ডিএসই। অথচ প্রকৃত তথ্য এই প্রান্তিকে সাবসিডিয়ারি কোম্পানিসহ এসিআই’র শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৫ টাকা ৯৯ পয়সা।

বড় ধরনের লোকসানকে বড় মুনাফা আকারে প্রকাশ করায় কোম্পানিটির শেয়ারের দাম লেনদেনের শুরুতেই বেড়ে যায়। আগের কার্যদিবসে ২২৯ টাকায় থাকা এসিআই’র শেয়ারের দাম দ্রুত বেড়ে ২৭০ টাকায় উঠে যায়। তবে শেষ পর্যন্ত শেয়ারের দামের এই উলম্ফন টেকেনি। দিনের লেনদেন শেষে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ২৪২ টাকায়।

লেনদেনের শুরুতে লোকসানের তথ্য মুনাফা আকারে প্রকাশ করা হলেও লেনদেন শুরুর ২২ মিনিট পর তা সংশোধন করা হয়। সংশোধনীতে ডিএসই জানায়, এসিআই’র সমন্বিত হিসাবে শেয়ারপ্রতি লোকসান হয়েছে ৫ টাকা ৯৯ পয়সা। এই সংশোধনী দেয়ার পর কোম্পানির শেয়ারের দাম কমতে থাকে।

ডিএসইর সূত্রটি বলছে, ভুল তথ্য প্রকাশের কারণে বিনিয়োগকারীরা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এ কারণে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের মার্কেট অপারেশন্স ডিপার্টমেন্টের প্রধান সায়িদ মাহমুদ জুবায়েরকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। একইসঙ্গে ওই বিভাগের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে উপ-মহাব্যবস্থাপক কামরুন নাহারকে।

মার্কেট অপারেশন্স ডিপার্টমেন্টের প্রধানকে বরখাস্তের পাশাপাশি ডিএসইর চেয়ারম্যান এসিআইয়ের আর্থিক হিসাব ভুলভাবে প্রকাশের জন্য ম্যানেজমেন্টকে আরও খতিয়ে দেখার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। বিষয়টি ভুল নাকি এর পেছনে অন্য কোনো কারণ আছে, তা খতিয়ে দেখতে বলেছেন। এ কারণে ম্যানেজমেন্ট বিষয়টি বিশদভাবে খতিয়ে দেখছে।

এ বিষয়ে ডিএসইর এক সদস্য বলেন, শেয়ারপ্রতি ৫ টাকা ৯৯ পয়সা লোকসানের তথ্য ডিএসই থেকে ৫ টাকা ১৯ পয়সা মুনাফা আকারে প্রকাশ করা হলো। এটা কিছুতেই স্বাভাবিক ঘটনা না। এতে লেনদেনের শুরুতে শেয়ারের দাম হু হু করে বেড়েছে। ফলে বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ ক্ষতির মুখে পড়েছেন। বিনিয়োগকারীদের এ ক্ষতির দায় কে বহন করবে?

তিনি বলেন, সর্বশেষ সমাপ্ত হিসাব বছরে এসিআই মোটা অঙ্কের লোকসান করেছে। সেখান থেকে হুট করে বড় অঙ্কের মুনাফার তথ্য প্রকাশ পাওয়ায় বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার কিনতে ঝুঁকেছেন। এটা স্বাভাবিক ঘটনা।

এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে ডিএসইর পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বলেন, এসিআইয়ের আর্থিক হিসাব নিয়ে অনাকাঙ্ক্ষিতভাবে ভুল তথ্য প্রকাশ করা হয়। এতে অনেক বিনিয়োগকারীকে লোকসান গুণতে হবে। যা স্বাভাবিকভাবে মেনে নেয়া যায় না। আমি নিজে এ বিষয়ে ডিএসইর চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। পরবর্তীতে তিনি জরুরি ভিত্তিতে করণীয় ব্যবস্থা নেয়ার জন্য ম্যানেজমেন্টকে নির্দেশ দেন। আজই ম্যানেজমেন্ট বৈঠকে বসে এ বিষয়ে পরবর্তী করণীয় ঠিক করবেন।

এমএএস/জেএইচ/এমএস