ব্যবসায় যোগাযোগটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ : আহসান খান চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৫৬ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

ব্যবসায় যোগাযোগটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে জানিয়েছেন ‘সপ্তম বাপা ফুডপ্রো ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো’ এর সভাপতি এবং দেশের শীর্ষস্থানীয় শিল্পপ্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আহসান খান চৌধুরী।

বাপা ফুডপ্রো এক্সপো আয়োজন উপলক্ষে মঙ্গলবার রাজধানীর পল্টনে ইআরএফ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বাপার সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক ইত্তাদুল হক, রেইনবো এক্সিবিশন অ্যান্ড ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক চান মোহন শাহা প্রমুখ।

আহসান খান চৌধুরী বলেন, ‘আমি মনে করি ব্যবসায় যোগাযোগটা খুবই ইম্পর্ট্যান্ট (গুরুত্বপূর্ণ)। টোটাল কৃষির সঙ্গে জড়িত যেকোনো মানুষ যদি এ মেলায় অংশগ্রহণ করেন তাহলে উনাদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগের একটি সুযোগ তৈরি হবে। হয়তো আমাদের যারা সরবরাহ করে তারাও যদি উপস্থিত হন, হয়তো পঞ্চগড়ে একজন স্ট্রবেরি উৎপাদন করেছেন, কিন্তু উনি জানেন না কীভাবে প্রাণের মাধ্যমে স্ট্রবেরিটা বাজারজাত করবেন?

‘যদি উনি এ মেলাটাকে কাজে লাগিয়ে আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করেন, হয়তো এটা অনেকের জন্য সুফল বয়ে আনতে পারবে। হয়তো আমাদের জন্যও এটা সুফল বয়ে আনবে। আমরাও কিন্তু এ মেলার মাধ্যমে আমাদের সরবরাহকারীদের খুঁজছি।’

তিনি বলেন, ‘এ মেলায় কিছু ছাত্রকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। তারাও যেন আগামী দিনে ইন্ডাস্ট্রিজে কী ধরনের চাহিদা তৈরি হচ্ছে এটা উপলব্ধি করতে পারে। বর্তমানে এগ্রিকালচার সেক্টরে ১০ লাখেরও বেশি মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। এ মেলায় আমরা হয়তো আরও ভালো মানুষের সন্ধান পাব, ভালো মানুষরাও হয়তো একটি কাজের সুযোগ পাবে। আমরা এ মেলাটাকে একটা বিনোদন ক্ষেত্র হিসেবে চিন্তা করতে পারি।’

তিনি আরও বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি ডেভেলপিং দেশ। তাই এ দেশের শিল্পায়নে সাংবাদিকদেরও ভূমিকা অনেক। তাই এবার প্রথমবারের মতো একটা টপিক রেখেছি, সেটা হচ্ছে আগামী দিনের শিল্পায়নে ইকোনোমিক রিপোর্টারদের ভূমিকা। শিল্পায়নে সাংবাদিকরা বা মিডিয়া কী ধরনের ভূমিকা রাখতে পারেন।

আগামী ২১ নভেম্বর শুরু হচ্ছে তিন দিনব্যাপী সপ্তম বাপা ফুডপ্রো ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো ২০১৯। ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) এ মেলা চলবে ২৩ নভেম্বর পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত মেলাপ্রাঙ্গণ সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। বাংলাদেশ এগ্রো প্রসেসরস অ্যাসোসিয়েশন (বাপা) এবং রেইনবো এক্সিবিশন অ্যান্ড ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সার্ভিসেস লিমিটেড এ মেলার আয়োজন করছে।

উল্লেখ্য, ১৩ সদস্য নিয়ে ১৯৯৮ সালে বাপার যাত্রা শুরু। বর্তমানে বাপার সদস্য সংখ্যা ৩০০। যারা প্রক্রিয়াজাত খাদ্য বিশ্বের ১৪৪ দেশে রফতানি করছে। বিগত অর্থবছরে খাদ্য রফতানির মাধ্যমে বাপার সদস্যরা ৩৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছেন। এ রফতানির পরিমাণ ২০২১ সালের মাঝে এক বিলিয়ন ডলারে উন্নীত করতে বাপা বদ্ধপরিকর।

এমইউএইচ/বিএ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]