বাণিজ্য মেলায় ভিন্ন স্বাদের ‘ট্রিট চকলেট’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২৩ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২০

স্বাস্থ্যসম্মত ও সুস্বাদু সব রকমারি চকলেটের সমাহার নিয়ে বাণিজ্য মেলায় এসেছে দেশের অন্যতম খাদ্য প্রক্রিয়া ও বাজারজাতকরণ প্রতিষ্ঠান প্রাণ গ্রুপের ‘প্রাণ কনফেকশনারি’। একটি কিনলে একটি ফ্রিসহ দারুণ সব অফার ও বিশেষ ছাড়ে এখানে পাওয়া যাচ্ছে ট্রিট চকলেট ব্র্যান্ডের ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের চকলেট।

রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে মাসব্যাপী আয়োজিত ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার ১৭ নম্বর প্রিমিয়ার স্টলে পাওয়া যাচ্ছে এসব পণ্য। স্টলটিতে ঢুকতেই নানা অঙ্গভঙ্গি করে শিশুদের স্বাগত জানাচ্ছে মিকি মাউস। এতে শিশুরা বেশ আনন্দিত।

মেলায় প্রতিষ্ঠানটির দায়িত্বরত কর্মী মো. রাকিব শেখ জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের চকলেট স্বাস্থ্যসম্মত ও এক্সপোর্ট কোয়ালিটির। এসব চকলেট ভারত, নেপাল, মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকাসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে রফতানি হচ্ছে। মেলায় ক্রেতা-দর্শনার্থীদের পণ্যগুলো পরিচয় করিয়ে দিতে আমরা অংশগ্রহণ করেছি। মেলায় বেশকিছু নতুন পণ্যসহ ৬০টির বেশি চকলেট আইটেম রয়েছে।

Treat-1

তিনি জানান, মেলায় ক্রেতাদের জন্য বিশেষ নগদ মূল্যছাড় ও বিভিন্ন অফার দেয়া হচ্ছে। এর মধ্যে ওয়ান্ডার ট্রিট চকলেট একটি কিনলে একটি ফ্রি দেয়া হচ্ছে। পাশাপাশি ১০০ টাকার পণ্য কিনলে নগদ ১০ শতাংশ মূল্যছাড়, ১০১ থেকে ২৫০ টাকার পণ্য কিনলে ১৫ শতাংশ এবং ২৫০ টাকার বেশি পণ্য কিনলে নগদ ২৫ শতাংশ নগদ মূল্যছাড় দেয়া হচ্ছে। বিভিন্ন ছাড় আর অফারে মেলায় ক্রেতাদের ভালো সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্যে ওয়ান্ডার চকলেট ও ললিপপ বেশি বিক্রি হচ্ছে বলে জানান প্রতিষ্ঠানটির এ কর্মকর্তা।

আবু সাঈদ নামের এক ক্রেতা জানান, বাসায় ছোট ছেলেমেয়ে রয়েছে। তারা চকলেট পছন্দ করে। ট্রিট চকলেটের মান ভালো। মেলায় বেশকিছু ছাড় দিয়েছে। তাই চকলেট কিনলাম। এতে বাচ্চারা খুব খুশি হবে।

বরাবরের মতো এবারও বছরের প্রথম দিন ১ জানুয়ারি শুরু হয় ২৫তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলা। মাসব্যাপী এ বাণিজ্য মেলা উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মেলা চলবে আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত। প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে রাত সাড়ে ৯টা পর্যন্ত দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে। টিকিটের দাম এ বছর প্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ৪০ টাকা এবং অপ্রাপ্ত বয়স্কদের জন্য ২০ টাকা।

Treat-1

এবারের মেলায় মোট স্টল/প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ৪৮৩টি। এর মধ্যে বিভিন্ন ক্যাটাগরির প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১১২টি, মিনি প্যাভিলিয়নের সংখ্যা ১২৮টি এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরির স্টলের সংখ্যা ২৪৩টি। এর মধ্যে বিদেশি প্যাভিলিয়ন ২৭টি, বিদেশি মিনি প্যাভিলিয়ন ১১টি এবং বিদেশি প্রিমিয়ার স্টলের সংখ্যা ১৭টি।

মেলায় বাংলাদেশের পাশাপাশি থাইল্যান্ড, ইরান, তুরস্ক, নেপাল, চীন, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ভারত, পাকিস্তান, হংকং, দক্ষিণ কোরিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, ভুটান, ব্রুনাই, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ইতালি ও তাইওয়ানের প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে।

এসআই/এমএসএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]