শেয়ারবাজারেও সুদ মওকুফ সুবিধা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:১৩ পিএম, ০১ জুন ২০২০

শেয়ারবাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর ক্ষেত্রেও এপ্রিল এবং মে মাসের সুদ স্থগিতের সুবিধা প্রযোজ্য হবে বলে পুঁজিবাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনকে (বিএসইসি) জানিয়েছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির।

সোমবার (১ জুন) এক সৌজন্য সাক্ষাতে গভর্নর ফজলে কবির বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামকে এ কথা জানান। রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিএসইসি থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সাইফুর রহমান স্বাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সাক্ষাতে বিএসইসি চেয়ারম্যান ব্যাংক থেকে নেয়া অন্য সবার ন্যায় শেয়ারবাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর ক্ষেত্রেও ঋণের সুদ স্থগিতের জন্য অনুরোধ করেন।

এর আলোকে গভর্নর বলেন, ‘ঋণের সুদ স্থগিতের সুবিধা শেয়ারবাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলোর ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে। এছাড়াও সার্কুলারের আওতায় ভবিষ্যতে প্রদত্ত সুবিধার ক্ষেত্রেও শেয়ারবাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান ও মার্চেন্ট ব্যাংকগুলো অন্তর্ভুক্ত থাকবে।’

বিএসইসি জানিয়েছে, বৈঠকে ব্যাংকগুলোকে শেয়ারবাজারে ২০০ কোটি টাকার তহবিল গঠনের মাধ্যমে বিনিয়োগে আনার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের হস্তক্ষেপ কামনা করেন বিএসইসি চেয়ারম্যান।

তিনি বলেন, ‘ব্যাংকগুলোকে শেয়ারবাজারে বিনিয়োগে ২০০ কোটি টাকার ফান্ড গঠনের সুবিধা দেয়া হলেও মাত্র ২টি বাণিজ্যিক ব্যাংক আংশিক বিনিয়োগ করেছে। আর ৮টি ব্যাংক এ বিষয়ে পর্ষদের অনুমোদন নিলেও এখনও এগিয়ে আসেনি।’

এদিকে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরের আগে ব্যাংকগুলোর নগদ লভ্যাংশ প্রদানের নিষেধাজ্ঞা নিয়েও বিএসইসি চেয়ারম্যান বৈঠকে আলোচনা করেন। ঘোষিত লভ্যাংশ ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের দ্রুত পাওয়ার ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গভর্নরকে অনুরোধ করেন। এর আলোকে গভর্নর বিষয়টি বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছেন।

আগামীতে বাংলাদেশ ব্যাংক ও বিএসইসির সমন্বয় বাড়ানো নিয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে বলে জানিয়েছে বিএসইসি। এ বিষয়ে বলা হয়েছে, একটি সমন্বয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিএসইসির পক্ষে ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে কমিশনার শেখ সামসুদ্দিন ও বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে নির্বাহী পরিচালক মো. মাসুদ বিশ্বাস প্রতিনিধিত্ব করবেন। কমিটি প্রথম ৩ মাসের প্রতি মাসে এবং পরবর্তীতে ২ মাস অন্তর সভায় মিলিত হবে।

সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের পক্ষে অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন- ডেপুটি গভর্নর এসএম মনিরুজ্জামান, আহমেদ জামাল, নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম, মো. মাসুদ বিশ্বাস, আবু ফারাহ মো. নাসের ও উপ-মহাব্যবস্থাপক মো. আনিসুর রহমান। আর বিএসইসির চেয়ারম্যানের সঙ্গে কমিশনার খন্দকার কামালুজ্জামান, ড. শেখ সামসুদ্দিন আহমেদ ও নির্বাহী পরিচালক সাইফুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

এমএএস/এফআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]