ওটিসির সোনালী পেপার মূল বাজারে ফিরছে ২৭৩ টাকায়

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১৯ এএম, ৩০ জুন ২০২০

ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেট থেকে সোনালী পেপার অ্যান্ড বোর্ড মিলস লিমিটেডকে মূল বাজারে ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালনা পর্ষদ।

আগামী ২ জুলাই থেকে কোম্পানিটির শেয়ার ডিএসইর মূল বাজারে লেনদেন হবে। মূল বাজারে ফিরিয়ে আনতে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম ধরা হয়েছে ২৭৩ টাকা। এই দামি ফ্লোর প্রাইস (সর্বনিম্ন দাম) হিসেবে বিবেচিত হবে। অর্থাৎ এর নিচে কোম্পানিটির শেয়ার দাম কমতে পারবে না।

মঙ্গলবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ থেকে বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

উৎপাদন বন্ধ থাকা, বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) না করা, ধারাবাহিক লোকসান, শেয়ারহোল্ডারদের নিয়মিত লভ্যাংশ না দেওয়া এবং কাগুজে শেয়ার ইলেকট্রনিকে রূপান্তর না করায় ২০০৯ সালের ১ অক্টোবর সোনালী পেপারকে মূল মার্কেট থেকে তালিকাচ্যুত করে ওটিসি মার্কেটে পাঠানো হয়।

প্রায় ১১ বছর ওটিসিতে থাকার পর মূল বাজারে ফিরতে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনে (বিএসইসি) আবেদন করে সোনালী পেপার। ওই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বেশ কিছু ধারা থেকে অব্যাহতি দিয়ে গত ২৭ নভেম্বর ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ এবং চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের মূল বাজারে পুনঃতালিকাভুক্তির অনুমোদন দেয় বিএসইসি।

মূল বাজারে ফিরতে যেকোনো কোম্পানির পরিশোধিত মূলধন ৩০ কোটি টাকা থাকার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। একইসঙ্গে ধারাবাহিক ৩ বছর মুনাফায় থেকে শেয়ারহোল্ডারদের লভ্যাংশ দিতে হয়। তবে, সোনালী পেপারকে এই দুটি শর্ত থেকে অব্যাহতি দিয়ে মূল বাজারে ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

সোনালী পেপারকে মূল বাজারে ফিরিয়ে আনা সংক্রান্ত ডিএসইর বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ডিএসইতে লেনদেনের প্রথম দিন থেকেই কোম্পানির সার্কিট ব্রেকার এবং সার্কিট ফিল্টার (প্রাইস লিমিট) থাকবে। ডিএসইতে কোম্পানিটির ট্রেডিং কোড হবে “SONALIPAPR”। আর ডিএসইতে সোনালী পেপারের কোম্পানি কোড হবে ১৯৫০৩।

কোম্পানির রেফারেন্স প্রাইস এবং ফ্লোর প্রাইস নির্ধারণ করা হয়েছে ওটিসি মার্কেটের সর্বশেষ দাম। সর্বশেষ গত ৩০ জানুয়ারি ওটিসিতে কোম্পানিটির শেয়া ২৭৩ টাকায় লেনদেন হয়।

ডিএসই আরও জানিয়েছে, কোম্পানিটি ওটিসি মার্কেট থেকে মূল মার্কেটে ফিরে ‘জেড’ ক্যাটাগরিতে লেনদেন করবে। সোনালী পেপারকে পরবর্তী বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) অনুষ্ঠানের আগ পর্যন্ত জেড ক্যাটাগরিতে লেনদেন করতে হবে। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) লেনদেন বিধিমালা, ২০১৩ অনুযায়ী পরবর্তীতে কোম্পানির ক্যাটাগরি পরিবর্তন করা হবে।

সোনালী পেপারের সর্বশেষ আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি হিসাব বছরের তৃতীয় প্রান্তিক (২০২০ সালের জানুয়ারি-মার্চ) শেয়ার প্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩৫ পয়সা, যা গত বছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৩১ পয়সা।

অপরদিকে নয় মাসের (২০১৯ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের মার্চ পর্যন্ত) শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ২ টাকা ২৯ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩ টাকা ৪৬ পয়সা। আর চলতি বছরের ৩১ মার্চ শেষে শেয়ারপ্রতি সম্পদ মূল্য (এনএভি) দাঁড়িয়েছে ৭৭৮ টাকা ৮৬ পয়সা।

এমএএস/এসএইচএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]