লোকসানে ফারইস্ট ফাইন্যান্স, দেবে না লভ্যাংশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:০০ এএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

লোকসানের মধ্যে নিমজ্জিত রয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ফারইস্ট ফাইন্যান্স। লোকসানে পড়ায় কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ ২০১৯ সালের সমাপ্ত বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের কোনো ধরনের লভ্যাংশ না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে চলতি বছরেও কোম্পানিটি লোকসানের মধ্যে নিমজ্জিত রয়েছে। অবশ্য আগের বছরের তুলনায় লোকসানের পরিমাণ কিছুটা কমেছে।

কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদ সভা শেষে প্রকাশিত আর্থিক প্রতিবেদন পর্যালোচনা করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। বুধবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

লভ্যাংশের বিষয়ে কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের নেয়া সিদ্ধান্ত শেয়ারহোল্ডারদের অনুমোদনের জন্য বার্ষিক সাধারণ সভার (এজিএম) তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে আগামী ২৯ অক্টোবর। আর রেকর্ড ডেট নির্ধারণ করা হয়েছে ৭ অক্টোবর।

সমাপ্ত হিসাব বছরে কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি লোকসান করেছে ৪ টাকা ৩৮ পয়সা এবং শেয়ারপ্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ২ টাকা ৮৫ পয়সা।

ডিএসই জানিয়েছে, লভ্যাংশ ঘোষণার কারণে আজ কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বাড়ার ক্ষেত্রে কোনো সার্কিট ব্রেকার থাকবে না। অর্থাৎ শেয়ার দাম যতখুশি বাড়তে পারবে।

তবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) নির্ধারিত সীমার নিচে শেয়ার দাম নামতে পারবে না।

এদিকে চলতি বছরের এপ্রিল-জুন প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিষ্ঠানটি শেয়ার প্রতি লোকসান করেছে ৩৮ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৫২ পয়সা। অর্থাৎ আগের বছরের তুলনায় শেয়ার প্রতি লোকসান ১৪ পয়সা কমেছে।

দ্বিতীয় প্রান্তিকের ব্যবসায় লোকসান করায় অর্ধবার্ষিক হিসাবে কোম্পানিটির লোকসানের পাল্লা ভারী হয়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ে শেয়ার প্রতি লোকসান হয়েছে ১ টাকা ১১ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩ টাকা ৪৫ পয়সা।

লোকসানের পাশাপাশি কোম্পানিটির সম্পদ মূল্যও আগের বছরের তুলনায় কমেছে। চলতি বছরের জুন শেষে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ১ টাকা ৭৪ পয়সা, যা ২০১৯ সালের ডিসেম্বর শেষে ছিল ২ টাকা ৮৫ পয়সা।

এদিকে অপারেটিং ক্যাশ ফ্লোর তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ে শেয়ার প্রতি অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো দাঁড়িয়েছে ঋণাত্মক ৬৭ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ঋণাত্মক ১ টাকা ৩ পয়সা।

এমএএস/এনএফ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]