এপিআই চালু করতে ডিএসই’র ইউএটি চুক্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪০ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০২০

নাসডাক’র ম্যাচিং ইঞ্জিনে অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রাম ইন্টারফেস (এপিআই) সংযোগ নিয়ে ব্রোকারেজ হাউজ যাতে নিজস্ব অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে লেনদেন করতে পারে এ জন্য ইউএটি (ব্যবহারকারীর গ্রহণযোগ্যতা পরীক্ষা) চুক্তি করেছে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)।

সোমবার (২৩ নভেম্বর) ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ, লঙ্কাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড এবং ডিরেক্ট এফএন লিমিটেডের মধ্যে হওয়া ত্রিপক্ষীয় এ চুক্তি স্বাক্ষর হয় বলে ডিএসই থেকে জানানো জয়েছে।

ডিএসই’র প্রোডাক্ট অ্যান্ড মার্কেট ডেভেলপমেন্ট বিভাগের প্রধান সৈয়দ আল আমিন রহমানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এ কার্যক্রম পরিচালিত হবে।

এ বিষয়ে ডিএসই’র প্রকাশনা ও জনসংযোগ বিভাগের উপ-মহাব্যবস্থাপক মো. শফিকুর রহমান জানান, বিশ্বের অন্যান্য স্টক এক্সচেঞ্জের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে ডিএসই এপিআই চালুর উদ্যোগ গ্রহণ করে। এর প্রেক্ষিতে ২৪টি ব্রোকারেজ হাউজ নাসডাক’র ম্যাচিং ইঞ্জিনে এপিআই সংযোগ নিয়ে নিজস্ব অর্ডার ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে লেনদেন করার জন্য ডিএসইতে আবেদন করে। আজ এপিআই ইউএটি চালুর ত্রিপাক্ষিক একটি চুক্তি হয়েছে।

ডিএসই’র প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা এম. সাইফুর রহমান মজুমদার ও লঙ্কাবাংলা সিকিউরিটিজের পরিচালক মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন চৌধুরী নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন বলে জানান শফিকুর রহমান।

চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে ডিএসই’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী ছানাউল হক বলেন, ‘আজ আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। দীর্ঘ প্রতিক্ষিত এপিআই ইউএটি চালুর পদক্ষেপ হিসেবে কার্যক্রম সম্পাদনের নিমিত্তে প্রথম চুক্তি স্বাক্ষরিত হচ্ছে। অন্যান্য দেশের ন্যায় সকল ব্রোকারেজ হাউজ যদি পর্যায়ক্রমে এপিআই সংযোগের মাধ্যমে নিজস্ব ওএমএস চালু করে তাহলে গ্রাহক সেবার উন্নতি হবে। যা পুঁজিবাজার উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বর্তমানে পুঁজিবাজারে যে আস্থা ফিরে এসেছে, তারই ফলশ্রুতিতে আগামীতে লেনদেন অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে। তাই এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।’ বাজারের গতিশীলতা বজায় রাখার স্বার্থে অন্যান্য স্টেকহোল্ডাররা এপিআই চালুর জন্য এগিয়ে আসবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন৷

লঙ্কাবাংলা সিকিউরিটিজ লিমিটেড পরিচালক মোহাম্মদ নাসিরউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আমরা আশা করছি ডিএসই’র সহায়তায় আগামী ফেব্রুয়ারি নাগাদ বাস্তবিক এপিআই কার্যক্রম শুরু করতে পারব। আমরা আগামী দুই-এক দিনের মধ্যেই এপিআই ইউএটি’র কার্যক্রম শুরু করব এবং আগামী ফেব্রুয়ারি নাগাদ এপিআই কার্যক্রম চালু করতে পারব।’

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ডিএসই’র উপ-মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ আল-আমিন রহমান, মো. শফিকুর রহমান, লঙ্কাবাংলা সিকিউরিটিজের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা ও পরিচালক এসএআর মো. মইনুল ইসলাম, ডিরেক্ট এফএন’র প্রতিনিধি সাকিব আহমেদ, আরমান আজমেদ খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এমএএস/এআরএ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]