‘এসএমই শিল্প খাতের উন্নয়নে সমৃদ্ধ হয় দেশ’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৩ পিএম, ২৪ নভেম্বর ২০২০

অর্থনীতিবিদ আহসান এইচ মনসুর বলেছেন, ‘প্রতিটি শিল্পই আসে ছোট থেকে। ছোট থেকে তারা বড় হয়, একবারে বড় হতে যেয়ে অনেকে লোকসানে পড়ে। আজকের উন্নত বিশ্বের কাতারে অবস্থান করা জাপান, কোরিয়া কিংবা চায়না একদিনে আসেনি। তারা তাদের এসএমই শিল্প খাতের উন্নয়নের কারণে নিজেরা সমৃদ্ধ হয়েছে।’

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) আইডিএলসি ফিন্যান্স আয়োজিত এসএমই খাতে বিনিয়োগ ও কর্মসংস্থানের সম্ভাবনা নিয়ে এক ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন এই অর্থনীতিবিদ।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতে এসএমই খাতের ভূমিকা অনেক। প্রায় ২ কোটি মানুষের কর্মসংস্থান এ খাতে। দেশের চাহিদা মেটাতে ব্যাপক অর্জন এসএমই খাতের, তবে সে হিসেবে এ খাতের বৈদেশিক রফতানি একেবারে নেই বললেই চলে। এ খাতের উন্নয়নে আমাদের ভ্যালু চেইন ডেভলপ করতে হবে।

আহসান এইচ মনসুর আরও বলেন, এসএমই খাতে স্যালারি ওয়ার্কার্স বাড়ছে, এটা যেমন ভালো দিক, আবার আগে ১০-১৫ লাখ টাকা বিনিয়োগে ৩৮ জনের কর্মসংস্থান করা যেতো। এটা এখন ৮ জনে নেমে এসেছে। আবার বিনিয়োগ স্থবিরতা আছে, অনেক চ্যালেঞ্জ আছে। আমাদের সামগ্রিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে এ খাতের উদ্যোক্তাদের এগিয়ে নিতে হবে।

কোভিড-১৯ মহামারি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, মহামারি কোভিডের কারণে অনেক দিক থেকে সমস্যা তৈরি হয়েছে। অনেক প্রতিষ্ঠানের পরিধি কমেছে, আবার অনেক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে গেছে। এসএমই খাতের উদ্যোক্তাদের উন্নয়নে যেমন কাজ করতে হবে তেমনি কোভিডের সময় যারা ব্যবসা হারিয়েছেন তাদেরকেও তুলে আনতে হবে।

ড. সায়মা হক বিদিশার পরিচালনায় আয়োজিত ভার্চুয়াল সভায় আরও বক্তব্য রাখেন আইডিএলসির প্রধান নির্বাহী আরিফ খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও পিআরআই-এর গবেষক ড. বজলুল হক।

ইএআর/এসএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]