তদন্ত স্থগিত : লেনদেন শুরুর আগেই সূচক বাড়ল ১০৮ পয়েন্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:০১ এএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২১

তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানগুলোর শেয়ারের দামের অস্বাভাবিক উত্থান-পতনের তদন্তের নির্দেশ স্থগিত করায় বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) লেনদেন শুরুর আগেই শেয়ারবাজারে মূল্য সূচকের বড় উত্থান হয়েছে।

প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) লেনদেন শুরুর আগেই প্রধান সূচক ১০০ পয়েন্টের ওপরে বেড়ে গেছে। প্রি-ওপেনিং সিস্টেম চালু থাকায় লেনদেন শুরুর আগেই সূচকের এই বড় উত্থান হয়।

৩০ কার্যদিবসের মধ্যে যেসব কোম্পানির শেয়ারের দাম ৫০ শতাংশ বেড়েছে বা কমেছে তার কারণ তদন্তের জন্য গত মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে দুই স্টক এক্সচেঞ্জকে নির্দেশ দেয়া হয়। একই সঙ্গে একমাসে যেসব কোম্পানির গড় লেনদেনের পরিমাণ আগের ছয় মাসের গড় লেনদেনের চেয়ে পাঁচগুণের বেশি বেড়েছে, যেসব কোম্পানির বার্ষিক বা প্রান্তিক শেয়ার প্রতি মুনাফা (ইপিএস) আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৫০ শতাংশের বেশি উত্থান-পতন ঘটেছে, মূল্য সংবেদনশীল তথ্য (পিএসআই) প্রকাশের আগের ১০ কার্যদিবসে যেসব কোম্পানির দাম ও লেনদেন ৩০ শতাংশের কম-বেশি হয়েছে, সেসব কোম্পানির বিষয়েও তদন্ত করতে বলা হয়।

নিয়ন্ত্রক সংস্থার এমন নির্দেশ আসার পর গতকাল বুধবার শেয়ারবাজারে বড় দরপতন হয়। লেনদেনের শুরু হওয়ার আগেই ডিএসইর প্রধান মূল্য সূচক ৪০ পয়েন্ট কমে যায়। আর লেনদেন শেষে সূচকটি কমে ৯০ পয়েন্ট।

শেয়ারবাজার এমন বড় পতনের মধ্যে পড়ায় তদন্তের নির্দেশ দেয়ার একদিন পরেই বুধবার বিকেলে তা স্থগিত করে বিএসইসি। তদন্ত স্থগিতের পর বৃহস্পতিবার লেনদেনের শুরুতেই শেয়ারবাজারে বড় ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা যাচ্ছে।

প্রি-ওপেনিং সিস্টেম চালু থাকায় লেনদেন শুরুর আগেই অনেক বিনিয়োগকারী বিভিন্ন কোম্পানির শেয়ার দাম বাড়ি ক্রয়-বিক্রয়ের আদেশ দেন। এতে ডিএসইতে লেনদেন শুরু হওয়ার আগেই প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১০৮ পয়েন্ট বেড়ে যায়। আর লেনদেন শুরুর প্রথম ৫ মিনিটে সূচকটি ১২২ পয়েন্ট বেড়ে যায়। এরপর সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা কিছুটা কমে।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত সকাল ১০টা ২৬ মিনিটে ডিএসইর প্রধান সূচক বেড়েছে ১০৮ পয়েন্ট। অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই শরিয়াহ বেড়েছে ১৮ পয়েন্ট। আর ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ৫৭ পয়েন্ট।

ডিএসইতে লেনদেনে অংশ নেয়া ২১৭টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৩৮টির আর ৫১টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের দাম বাড়া ও মূল্য সূচকের বড় উত্থানের পাশাপাশি লেনদেনে বেশ ভালো গতি দেখা যাচ্ছে। এরইমধ্যে ডিএসইতে ৪০১ কোটি ৬৫ লাখ টাকার লেনদেন হয়েছে।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৮৭ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ২০ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেয়া ১০৭ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩ টির, কমেছে ৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৭টির।

এমএএস/এসজে

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]