‘লবণনামা’ ভিন্নধর্মী ও সফল ক্যাম্পেইনের ইতিকথা

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:০৯ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০২১

‘লবণ’ আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি উপাদান। লবণের প্রতি তেমন গুরুত্ব আমরা দেই না। অথচ লবণের তাৎপর্যপূর্ণ ইতিহাস রয়েছে, যা আমাদের ঐতিহ্য বা লোকাচারেও নানাভাবে জড়িয়ে আছে। লবণের এসব জানা-অজানা তথ্য নিয়ে একটু ভিন্ন আঙ্গিকে ‘লবণনামা’ নামে একটি ওভিসি নির্মাণ করে ফ্রেশ সুপার প্রিমিয়াম সল্ট, যা এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রশংসিত হয়েছে।

‘লবণনামা’র এই পথচলার শুরুটা মোটেই মসৃণ ছিল না। প্রথম চ্যালেঞ্জ ছিল, লবণকে কেন্দ্র করে সৃষ্টি বিভিন্ন লোককথা ও তথ্য খুঁজে বের করা এবং সেই তথ্য সৃজনশীলতার সাথে উপস্থাপন করা। এটি করতে গিয়ে অনলাইন ও অফলাইনে কম ঘাটাঘাটি করতে হয়নি ক্রিয়েটিভ টিমকে। এর পরের চ্যালেঞ্জ ছিল সেসব লোকগাঁথার সঙ্গে দেশপ্রেম, সততা, কর্তব্য ইত্যাদি গুণাবলির মেলবন্ধ সৃষ্টি করা। যাতে ‘লবণনামা’ শক্তিশালী একটি গল্প হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়।

এ তো গেল গল্পের কথা। কিন্তু ‘লবণনামা’ কেমন হবে তা নিয়েও কম দ্বিধা ছিল না। অবশেষে বেছে নেয়া হয় গ্রামবাংলার প্রাচীন ঐতিহ্য পুঁথিপাঠকে। পুঁথিপাঠের সুরে সুরে সেই সুপ্রাচীন ‘নুন খাই যার, গুণ গাই তার’ প্রবাদটিকে লবণের লোককথার সাথে চমৎকারভাবে উপস্থাপন করা হয়। এর মাধ্যমেই ক্যাম্পেইনটি হয়ে ওঠে বিজয় দিবস-২০২০ এর অন্যতম জনপ্রিয় ক্যাম্পেইন।

তিন সপ্তাহের মধ্যে ক্যাম্পেইনটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে প্রায় ৪২ হাজারেরও বেশি শেয়ার হয়েছে, যা এবারের বিজয় দিবসের সর্বোচ্চ শেয়ারকৃত ডিজিটাল ক্যাম্পেইন। ইতোমধ্যে ফেসবুকে ‘লবণনামা’ দেখা হয়েছে অন্তত ৭৯ লাখ বারেরও অধিক। এই সাফল্যগাঁথা মুহূর্ত স্মরণীয় করে রাখতে এমজিআইর এফএমসিজি ডিভিশনের ব্র্যান্ড ডিপার্টমেন্টের উপস্থিতিতে কেক কাটার মাধ্যমে উদযাপন করা হয়।

দেশের শীর্ষস্থানীয় এফএমসিজি ব্র্যান্ড ফ্রেশ-এর এ ক্যাম্পেইনের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন জেনারেল ম্যানেজার (ব্র্যান্ড) কাজী মোহাম্মদ মহিউদ্দিন, অ্যাসিসটেন্ট জেনারেল ম্যানেজার (ব্র্যান্ড) মো. আবুল হাসনাত মজুমদার, সিনিয়র ব্র্যান্ড এক্সিকিউটিভ মো. সিকান্দার হোসাইন। ক্যাম্পেইনটি সফল করার এই প্রচেষ্টায় সার্বিক সহায়তায় ছিল ডিজিটাল মার্কেটিং এজেন্সি ম্যাগনিটো ডিজিটাল লিমিটেড (ম্যাগনিটো ডিজিটাল-এর ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর কৌশিক দে, অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড সার্ভিসেস ডিরেক্টর ইশরাক ঢালি, অ্যাকাউন্ট ম্যানেজার নাফিস ফারহান, কনটেন্ট অ্যান্ড প্ল্যানিং ডেপুটি ম্যানেজার শুভ্র প্রতিম চন্দ)।

এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]