ইপিজেডে একযুগে ৫ গুণ বেড়েছে রফতানি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:২০ পিএম, ২৮ মার্চ ২০২১

গত ১২ বছরে বাংলাদেশ রফতানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষের (বেপজা) নিয়ন্ত্রিত ইপিজেডে অগ্রগতি হয়েছে। এ সময়ের মধ্যে শুধু রফতানি বেড়েছে ৫ গুণ।

অর্থাৎ ২০০৮ সালে ১৭ দশমিক ৫৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের পণ্য রফতানি দিয়ে শুরু হলেও ২০২০-এ এসে দাঁড়িয়েছে ৮৩ দশমিক ৬৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের রফতানি।

শুধু রফতানিই বাড়েনি, বেপজা এলাকায় বিনিয়োগ বেড়েছে সাড়ে ৩ গুণ। কর্মসংস্থান ও শিল্প বেড়েছে ২ গুণ। বেপজার প্রতিবেদনে এ চিত্র উঠে এসেছে।

প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, করোনাকালে যখন বিশ্ব অর্থনীতি থমকে গিয়েছিল, তখন বেপজা এলাকায় বিনিয়োগ এসেছে উল্লেখযোগ্যহারে। ২৪৮ দশমিক ৩৮ মিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ এসেছে। চীন, দক্ষিণ কোরিয়া, শ্রীলঙ্কা, জার্মানি, যুক্তরাজ্যের মতো দেশ থেকে বিনিয়োগে আসে। এছাড়া নতুন শিল্পপ্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে ১২টি।

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশের ৮টি ইপিজেডে মোট ৪৬৩টি শিল্প কারখানা চালু রয়েছে। বাস্তবায়ন হয়েছে আরও ৬৮টি কারখানা। বিনিয়োগ রয়েছে ৫৫১৬ দশমিক ৪৫ মিলিয়ন ডলার। আর রফতানির পরিমাণ ৮৪৭৮১ দশমিক ৬১ মিলিয়ন ডলার। এখন পর্যন্ত ইপিজেডে ৪ লাখ ২৩ হাজার ৫০১ জনের কর্মসংস্থান হয়েছে।

অন্যদিকে মহামারিতে ব্যক্তিগত সুরক্ষামূলক সরঞ্জাম (পিপিই) উৎপাদনে উৎসাহিত ও সাহায্য করেছিল বেপজা। ফলে বেপজা প্রতিষ্ঠানগুলো এ খাতের বড় রফতানিকারক।

এছাড়া দেশের ইপিজেডগুলোতে শ্রমিকদের যেকোনো সমস্যা সমাধানের জন্য সার্বক্ষণিক হেল্পলাইন (১৬১২৮) সেবা চালু করেছে বেপজা। রোববার (২৮ মার্চ) বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে অবস্থিত বেপজা কমপ্লেক্সে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সেবা উদ্বোধন করা হয়। একযোগে আটটি ইপিজেডে এই সেবা চালু করা হয়।

এই সেবার মাধ্যমে শ্রমিকরা তাদের যেকোনো অভিযোগ হেল্পলাইনে ফোন করে জানাতে পারবেন। শ্রমিকের কাছ থেকে পাওয়া অভিযোগ শিল্প সম্পর্কিত বিভাগকে জানানো হবে। অভিযোগ পরীক্ষা করে সর্বোচ্চ সাতদিনের মধ্যে তদন্ত করে নিষ্পত্তির উদ্যোগ নেয়া হবে এবং অভিযোগকারীকে আপডেট তথ্য জানানো হবে। শিল্প সম্পর্কে প্রতিমাসে প্রাপ্ত অভিযোগ এবং নিষ্পত্তির বিষয়ে একটি প্রতিবেদন বেপজার নির্বাহী দফতরে প্রেরণ করা হবে।

ইএআর/জেডএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]