সর্বোচ্চ ২ শতাংশ কমতে পারবে ৬৬ কোম্পানির শেয়ার দাম

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৪৫ পিএম, ১০ এপ্রিল ২০২১

বড় দরপতনের পর ফ্লোর প্রাইস (সর্বনিম্ন সীমা) তুলে নেয়া ৬৬ কোম্পানির শেয়ারের দাম কমার ক্ষেত্রে সার্কিট ব্রেকারের নীতিমালায় পরিবর্তন এনেছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

এ নীতিমালা অনুযায়ী, এই ৬৬টি কোম্পানির শেয়ার দাম এক দিনে সর্বোচ্চ ২ শতাংশ কমতে পারবে। যা আগে ছিল ১০ শতাংশ। দরপতনের সীমা কমানো হলেও দাম বাড়ার সীমা আগের মতই রয়েছে। আগের মতো একদিনে এই ৬৬ কোম্পানির শেয়ার দাম সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ বাড়তে পারবে।

শনিবার (১০ এপ্রিল) এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেছে বিএসইসি। এ বিষয়ে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বলেন, করোনা পরিস্থিতিতে বিনিয়োগকারীদের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে ফ্লোর প্রাইস প্রত্যাহার করা ৬৬টি কোম্পানির শেয়ারের দাম বাড়ার সর্বোচ্চ সীমা ১০ শতাংশ রাখা হয়েছে। তবে দর কমার সর্বোচ্চ সীমা ২ শতাংশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন।

এর আগে গত বুধবার কমিশন সভা করে বৃহস্পতিবার থেকে ৬৬ কোম্পানির ফ্লোর প্রাইস উঠিয়ে নেয় বিএসইসি।

কোম্পানিগুলো হলো- পিপলস লিজিং, আরএন স্পিনিং, বাংলাদেশ সার্ভিস, আইএফআইএস ইসলামিক মিউচুয়াল ফান্ড-১, জাহিন স্পিনিং, রিং শাইন, অলিম্পিক এক্সেসরিজ, ডিবিএইচ ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, ফনিক্স ফাইন্যান্স ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড, নূরানী ডাইং, রিজেন্ট টেক্সটাইল, এসইএমএল এফবিএলএসএল গ্রোথ ফান্ড, ইভিন্স টেক্সটাইল, প্যাসিফিক ডেনিম, মেট্রো স্পিনিং, কাট্টলি টেক্সটাইল, ফার কেমিক্যাল, দেশবন্ধু পলিমার, ইয়াকিন পলিমার, সাফকো স্পিনিং, ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড, সেন্ট্রাল ফার্মাসিটিক্যালস, বিচ হ্যাচারি, সিনটেক্স ইন্ডাস্ট্রিস।

এছাড়াও শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, হামিদ ফেব্রিক্স, প্রাইম টেক্সটাইল, সায়হাম কটন, বাংলাদেশ বিল্ডিং, গোল্ডেন হার্ভেস্ট, এএফসি এগ্রো, বেঙ্গল উইন্ডোজ, খুলনা প্রিন্টিং অ্যান্ড প্যাকেজিং, সিলভা ফার্মাসিটিক্যালস, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিটিক্যালস, আর্গন ডেনিম, কপারটেক, শাশা ডেনিমস, সুহৃদ ইন্ডাস্ট্রিজ, এস্কয়ার নিটিং, ভিএফএস থ্রেড ডাইং, আইপিডিসি ফাইন্যান্স, ফিনিক্স ফাইন্যান্স।

এছাড়াও আরও রয়েছে- অ্যাডভেন্ট ফার্মা, রতনপুর স্টিল রি-রোলিং মিলস, কুইন সাউথ টেক্সটাইল, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংক, ওয়াইম্যাক্স ইলেকট্রোড, রূপালী ব্যাংক, সায়হাম টেক্সটাইল, সোনারগাঁ টেক্সটাইল, আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ, গ্লোবাল হেভি কেমিক্যাল, নাভানা সিএনজি, ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই, ইউনিক হোটেল, স্ট্যান্ডার্ড ইন্সুরেন্স, ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্সুরেন্স, উত্তরা ফাইন্যান্স, উসমানিয়া গ্লাস সিট, খুলনা পাওয়ার, নাহি অ্যালুমিনিয়াম, দুলামিয়া কটন, সিনোবাংলা ইন্ডাস্ট্রিজ, প্যারামাউন্ট টেক্সটাইল এবং এম এল ডাইং।

ফ্লোর প্রাইস উঠিয়ে নেয়ায় বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বৃহস্পতিবার যার নেতিবাচক প্রভাব পড়ে সার্বিক শেয়ারবাজারে। এর ফলে বিনিয়োগকারীরা ফ্লোর প্রাইস পুনর্বহালের দাবি জানায়। ওই দাবির পরিপ্রেক্ষিতেই এক দিনের মাথায় ৬৬টি কোম্পানির শেয়ারের দাম কমার সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি।

এমএএস/এআরএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]