কথা রেখেছে আনন্দের বাজার

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৩০ পিএম, ১০ মে ২০২১ | আপডেট: ০৫:৩৭ পিএম, ১০ মে ২০২১

বাংলাদেশ ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের নতুন একটি নাম আনন্দের বাজার। ঈদকে কেন্দ্র করে আনন্দের বাজার ওয়েবসাইটে ক্যাম্পেইন চলছে ‘ঈদ আনন্দের ঝড়’। এই ক্যাম্পেইনে বিভিন্ন অফারের মধ্যে অন্যতম একটি অফার ছিল মোটরবাইকে ৩৬ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় এবং ৪০ দিনের মধ্যে নিশ্চিত ডেলিভারি।

তরুণরা এই অফারে আকর্ষিত হন এবং মোটরবাইক অর্ডার করেন। আনন্দের বাজার তাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল তারা শিগগিরই বাইক ডেলিভারি করবে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল রোববার (৯ মে) আনন্দের বাজার ক্যাম্পেইন চলাকালীন ৭০টিরও বেশি মোটরবাইক ডেলিভারি করে।

মাত্র সাতদিনে একসাথে এতো মোটরবাইক ডেলিভারি করা বাংলাদেশ ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে নজিরবিহীন।

গতকাল ৯ মে বেলা ১১টায় ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকায় দুটি স্বনামধন্য মোটরবাইক শোরুম থেকে বাইক ডেলিভারি করে আনন্দের বাজার। মোটরবাইক ডেলিভারি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আনন্দের বাজারের (ম্যানেজিং ডিরেক্টর ও সিইও) এ এইচ খন্দকার (মিঠু) এবং (হেড অব মার্কেটিং) আতিক রহমান। উপস্থিত ছিলেন মোটরবাইক অর্ডারকারী তরুণ গ্রাহকরা।

মোটরবাইক ডেলিভারি অনুষ্ঠান শেষে আনন্দের বাজারের (এমডি ও সিইও) এএইচ খন্দকার (মিঠু) বলেন, “বাঙালি বাজার করতে বা বাজার করে আনন্দ পায় আর এই ঐতিহ্য ধরে রাখার জন্য আমাদের এই প্রচেষ্টা। আমরা চাই বাংলার মানুষ আবারো বাজার করে আনন্দ পাবে; তবে তা অনলাইন মার্কেটপ্লেস ‘আনন্দের বাজার’ থেকে।”

আনন্দের বাজারের (হেড অব মার্কেটিং) আতিক রহমান বলেন, ‘আমরা গ্রাহকদের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তা পালন করার চেষ্টা করেছি। বাকি যারা মোটরবাইক পাননি তাদের সময় মতো মোটরবাইক ডেলিভারি দেয়া হবে। ঈদের পরে কিছু দুর্দান্ত ক্যাম্পেইন নিয়ে গ্রাহকদের সেবা দিতে প্রস্তুতি নিচ্ছে আনন্দের বাজার।’

অনুষ্ঠানে যে তরুণরা উপস্থিত ছিলেন তারা বলেন, কোনো ই-কমার্স থেকে এতো তাড়াতাড়ি বাইক ডেলিভারি পাবেন এ কথা বিশ্বাস হচ্ছে না তাদের। মোটরবাইক ডেলিভারি পেয়ে তারা আনন্দিত এবং পরে তারা আনন্দের বাজার থেকে সব সময় এমন সেবা পাওয়ার আশা প্রকাশ করেন।

এলএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]