৯০ শতাশং কারখানায় বেতন-বোনাস সম্পন্ন, বাকিগুলো আজকের মধ্যে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:০৪ এএম, ১১ মে ২০২১
ফাইল ছবি

দরজায় কড়া নাড়ছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। একদিন পরই মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব পালন করবেন মুসল্লিরা। এবারের ঈদে তৈরি পোশাক কারখানায় দু’একটি কারখানা বাদে প্রায় শতভাগ কারখানাতেই বেতন-বোনাস নিশ্চিত করতে পারবেন মালিকপক্ষ এমনটিই জানিয়েছে।

অন্যদিকে বিজিএমইএ, বিকেএমইএ ও বিটিএমএ সদস্যভুক্ত প্রতিষ্ঠানে প্রায় ৯০ শতাংশ কারখানায় বেতন সম্পন্ন হয়েছে। বোনাস হয়েছে প্রায় ৯২ শতাংশ কারখানায়। বাকি কারখানায় বেতন-বোনাস দিয়ে আজই কারখানা বন্ধ হবে, বলে জানিয়েছেন তৈরি পোশাক মালিকেরা।

অন্যদিকে অনেক কারাখানা শতভাগ বেতন-বোনাস নিশ্চিত করে কারখানায় ছুটি ঘোষণা করেছে। বোনাস সম্পন্ন করেছে ১৫ রমজানের পর পরই। বাকি কারখানায় কাজের চাপ বেশি থাকায় বোনাস-বেতন একসাথে দিয়েই ছুটির ঘোষণা আসতে পারে।

তবে পোশাক শিল্পে এবার তিন দিনের বেশি ছুটি হচ্ছে না এমন নির্দেশনা সরকারের। কিন্তু কারখানায় কাজের চাপ কম হওয়ায় অনেক কারখানা এক সপ্তাহের ছুটি দিয়ে কারখানা বন্ধ ঘোষণা করেছে।

রোববার (৯ মে) রাজধানীর শ্রম ভবনে আয়োজিত আরএমজি বিষয়ক ত্রিপাক্ষীয় পরামর্শ পরিষদ (টিসিসি) সভায় শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান বলেন, কারখানায় সরকারের তিন দিন ছুটি ঘোষণা ব্যত্যয়ের সুযোগ নেই। শ্রমিকদের নির্ধারিত ছুটির বাইরে ওভারটাইম করাবেন না পরে ছুটি দেবেন তা মালিক ও শ্রমিক পক্ষ নির্ধারণ করবেন।

তিনি বলেন, সরকার তিন দিন ছুটি নির্ধারণ করেছে। এ বাইরে অনেক গার্মেন্টেসে ৫ থেকে ৭ দিন পর্যন্ত ছুটি দিয়েছে। ছুটি যাই হোক কর্মস্থলে অবস্থান করতে হবে। সরকার নির্ধারিত তিন দিনের বেশি যদি কোন কারখানায় ছুটি দেয়া হয় তবে তাকে অবশ্যই সে কারখানার শ্রমিকদের কর্মস্থলেই থাকতে হবে। কোনোভাবেই নিজ নিজ কর্মস্থল ত্যাগ করা যাবে না।

বিজিএমইএ’র সিনিয়র সহ-সভাপতি এস এম মান্নান কচি বলেন, এবার ঈদে আমাদের ছুটি দিতে কোনো আপত্তি নেই, ছুটি আসবে ছুটি যাবে। তবে সবার আগে জীবন, দেশ। এখন পরিস্থিতি ভালো না, এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী তিন দিনের ছুটি নির্ধারণ করেছে এতে আপত্তি থাকার কথা না।

বেতন-বোনাস নিয়ে পোশাক শিল্প উদ্যোক্তা ফতুল্লা অ্যাপারেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিকেএমইএ’র সহ-সভাপতি ফজলে এহসান শামীম জাগো নিউজকে বলেন, শেষ মুহূর্তে হলেও মালিকপক্ষ নিজের গাড়ি-বাড়ি বিক্রি করেও শ্রমিকের টাকা পরিশোধ করে থাকেন।

এবারও সব কারখানায় বেতন হবে, মালিকরা বেতন পরিশোধ করবেন। শ্রমিক কারখানার প্রাণ, তাদেরকে কোনো মালিকই ঠকাতে চান না। সবার বেতন হবে বলেই আমাদের বিশ্বাস।

এ বিষয়ে তৈরি পোশাক মালিক ও রফতানিকারক সমিতি-বিজিএমইএ’র সভাপতি ফারুক হাসান জাগো নিউজকে বলেন, আমাদের কারখানাগুলোতে ইতোমধ্যে ৯০ শতাংশ বেতন পরিশোধ করেছেন কারখানা মালিকরা, বোনাসও হয়েছে প্রায় ৯২ শতাংশ কারখানায়।

বাকি কারখানায় আজকের (মঙ্গলবার) মধ্যে পরিশোধ করবেন বলে আশা করছি। তবে প্রতি বারেই দু’একটি কারখানায় সমস্যা তৈরি হয়, এবারও হতে পারে। তবে আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করব কোনো প্রকার ঝামেলা ছাড়াই যেন শ্রমিকরা পাওনা পেয়ে যান এবং আনন্দে ঈদ করেন।

ইএআর/এমআরএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]