‘বিকাশ-নগদে বাড়তি কর প্রত্যাহার না হলে ক্ষতিগ্রস্ত হবেন ভোক্তারা’

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৮ এএম, ০৭ জুন ২০২১

২০২১-২২ অর্থবছরের বাজেটে করপোরেট কর কমানোর ফলে দেশে বিনিয়োগ বাড়বে বলে মনে করে ইনস্টিটিউট অব কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্টস্ অব বাংলাদেশ (আইসিএমএবি)।

তবে রকেট, বিকাশ কিংবা নগদের মতো মোবাইল ফোন ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের (এমএফএস) ওপর কর বাড়ায় ভোক্তারা ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। তাই বাড়তি কর কমানোর প্রস্তাব দিয়েছে ইনস্টিটিউটিটি।

রোববার (৬ জুন) সন্ধ্যায় বাজেটপরবর্তী ওয়েবিনারে এ প্রস্তাব করে আইসিএমএবি। ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন শফিকুল আলম।

তিনি বলেন, মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসে ট্যাক্স বেড়েছে। সব জায়গায় ভেন্ডর পেমেন্ট থেকে শুরু করে স্যালারি পেমেন্টে ব্যাংকিং চ্যানেলের বাইরে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা আমরা দেখি।

‘পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত এমএফএস কোম্পানিগুলোর করহার প্রস্তাব করা হয়েছে ৩২ দশমিক ৫০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৩৭ দশমিক ৫০ শতাংশ। আর তালিকাবহির্ভূতের ক্ষেত্রে তা ৪০ শতাংশ। এখন পর্যন্ত দেশে কোনো এমএফএস প্রতিষ্ঠান তালিকাভুক্ত না হওয়ায় সব এমএফএসকেই ৪০ শতাংশ হারে কর দিতে হবে। সামগ্রিক ডিজিটালাইজেশনে এ হার নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে’ বলেন তিনি।

শফিকুল আলম আরও বলেন, ‘ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জের বাইরে জেনারেল হাসপাতাল করা হয় ২৫০ শয্যার। সেখানে ১০ বছরের কর ছাড়ে যে প্রস্তাব করা হয়েছে, সেটা আইসিএমএবি সাধুবাদ জানায়। তবে শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে আরও বরাদ্দের প্রস্তাব জানাচ্ছি আমরা।’

আইসিএমএবি ভাইস প্রেসিডেন্ট মামুনুর রশীদ বলেন, কোম্পানি রিটার্নের সঙ্গে চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট ইনস্টিটিউট কর্তৃক যে সার্টিফাইড ফাইন্যান্সিয়াল স্টেটমেন্ট সেখানে কস্ট অব গুড সোল সেগমেন্ট যদি কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট (সিএমই) দ্বারা সার্টিফাই করা হয়, তাহলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে। ট্যাক্স ও ভ্যাট অডিট সিএমই দ্বারা করা হলে সরকারের রাজস্ব বাড়বে, প্রোডাক্টের প্রাইসিং ও ভালো হবে। এ বিষয়ে বাজেটে নির্দেশনা দরকার।’

ওয়েবিনারে আরও উপস্থিত ছিলেন আইসিএমএবি প্রেসিডেন্ট আবু বকর সিদ্দিক, রাজস্ব কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ জিয়াউদ্দিন প্রমুখ।

এসএম/এএএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]