মুনাফা বেড়েছে দুই ব্যাংকের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:১৪ এএম, ১৯ জুলাই ২০২১

চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) পুঁজিবাজারে উত্তরা ব্যাংক ও এনসিসি ব্যাংকের মুনাফা আগের বছরের তুলনায় বেড়েছে। সেই সঙ্গে ব্যাংক দুটির সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী, পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোকে প্রতি তিন মাস পরপর তাদের ব্যবসার আয়-ব্যয়ের তথ্য প্রকাশ করতে হয়।

তারই আলোকে সোমবার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে এই দুই কোম্পানি চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। ওই প্রতিবেদনে কোম্পানিগুলোর মুনাফার এই তথ্য উঠে এসেছে।

উত্তরা ব্যাংক

চলতি বছরের এপ্রিল থেকে জুন সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৫ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ২৫ পয়সা। এ হিসাবে আগের বছরের তুলনায় শেয়ারপ্রতি মুনাফা বেড়েছে ৮০ পয়সা।

দ্বিতীয় প্রান্তিকের মুনাফায় বড় উত্থান হওয়ায় অর্ধবার্ষিকী হিসাবেও কোম্পানিটির মুনাফায় উন্নতি হয়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ে ব্যাংকটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৭৯ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ৪৪ পয়সা।

মুনাফার পাশাপাশি কোম্পানিটির সম্পদমূল্য বেড়েছে। চলতি বছরের জুন শেষে শেয়ারপ্রতি সম্পদমূল্য দাঁড়িয়েছে ৩১ টাকা ৬২ পয়সা, যা গত বছরের জুন শেষে ছিল ২৮ টাকা ৬৯ পয়সা।

অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো’র তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত সময়ে শেয়ারপ্রতি অপারিটিং ক্যাশ ফ্লো দাঁড়িয়েছে ২ টাকা ২৩ পয়সা। আগের হিসাব বছরের একই সময়ে শেয়ারপ্রতি অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ১০ টাকা ৭৬ পয়সা।

এনসিসি ব্যাংক

চলতি বছরের এপ্রিল থেকে জুন সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ৮৮ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩৫ পয়সা। এ হিসাবে আগের বছরের তুলনায় শেয়ারপ্রতি মুনাফা বেড়েছে ৫৩ পয়সা।

দ্বিতীয় প্রান্তিকের মুনাফায় বড় উত্থান হওয়ায় অর্ধবার্ষিকী হিসাবেও কোম্পানিটির মুনাফায় উন্নতি হয়েছে। চলতি বছরের জানুয়ারি-জুন সময়ে ব্যাংক শেয়ারপ্রতি মুনাফা হয়েছে ১ টাকা ৪৩ পয়সা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ১ টাকা ১৭ পয়সা।

মুনাফার পাশাপাশি কোম্পানিটির সম্পদমূল্য বেড়েছে। চলতি বছরের জুন শেষে শেয়ার প্রতি সম্পদ মূল্য দাঁড়িয়েছে ২৩ টাকা ৩০ পয়সা, যা গত বছরের জুন শেষে ছিল ২১ টাকা ৮৪ পয়সা।

অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো’র তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত সময়ে শেয়ারপ্রতি অপারিটিং ক্যাশ ফ্লো দাঁড়িয়েছে ৩ টাকা ৫০ পয়সা। আগের হিসাব বছরের একই সময়ে শেয়ার প্রতি অপারেটিং ক্যাশ ফ্লো ছিল ঋণাত্মক ১ টাকা ৩ পয়সা।

এমএএস/বিএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]