শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নৌযান থেকে মূসক প্রত্যাহারের দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:০৮ এএম, ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২১

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নৌযানের ওপর থেকে মূসক (মূল্য সংযোজন কর) প্রত্যাহারের জন্য এনবিআরের কাছে সুপারিশ করতে এফবিসিসিআই সভাপতিকে অনুরোধ জানিয়েছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল সংস্থা (যাপ)।

শনিবার (৪ আগস্ট) দেশের ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করে এ দাবি জানায় সংস্থাটি।

এ সময় ফুলের তোড়া দিয়ে এফবিসিসিআই সভাপতিকে অভিনন্দন জানান যাপের নেতারা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন যাপের সিনিয়র সহ-সভাপতি বদিউজ্জামান বাদল, সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু, পরিচালক আবুল কালাম খান, পরিচালক মামুন অর রশিদ, সাবেক প্রধান উপদেষ্টা গোলাম কিবরিয়া টিপু ও সদস্য উপদেষ্টা কামাল হোসেন।

এফবিসিসিআই সভাপতিকে দাবি-সম্বলিত চিঠি হস্তান্তর করেন বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল সংস্থার সভাপতি মাহবুব উদ্দিন আহমদ বীর বিক্রম।

চিঠিতে জানানো হয়, ২০১৯-২০ অর্থবছরে তাপানুকূল (শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত) লঞ্চ সার্ভিসের বিপরীতে পাঁচ শতাংশ হারে মূসক আরোপ করা হয়েছিল। কিন্তু গত অর্থবছরে এই হার বাড়িয়ে দ্বিগুণ (১০ শতাংশ) করা হয়।

নভেম্বর, ডিসেম্বর, জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি—এ চার মাসে এসি ব্যবহার করা হয় না উল্লেখ করে এতে আরও বলা হয়, ভোক্তা কর হওয়া সত্ত্বেও যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি টাকা না নিয়েই মালিকরা নিজস্ব অর্থায়ন থেকে ভ্যাট পরিশোধ করেন। নদীর নাব্য সংকট ও যাত্রী স্বল্পতার কারণে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন রুটে লঞ্চ পরিচালনা বন্ধসহ দেড় থেকে দ্বিগুণ ঘুরে লঞ্চগুলোকে গন্তব্যস্থলে পৌঁছাতে হচ্ছে। করোনা মহামারির সংকটকালেও যাত্রীবাহী নৌযানের ভাড়া বাড়ানো হয়নি। এ অবস্থায় শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত নৌযানের ওপর থেকে মূসক প্রত্যাহারের জন্য এনবিআরের কাছে সুপারিশ করতে এফবিসিসিআই সভাপতিকে অনুরোধ জানিয়েছে যাপ।

সাক্ষাতে লঞ্চ মালিক নেতাদের সব ধরনের সহায়তা দেয়ার আশ্বাস দেন এফবিসিসিআই সভাপতি।

ইএআর/এসআর

 

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]